রূপনারায়ণে ভয়াবহ নৌকাডুবি নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বেআইনি ঘাঁটে যাত্রী পারাপার হচ্ছিল বলেই এই অবস্থা বললেন পরিবহণ মন্ত্রী।   

বৈধ ঘাঁটের সংখ্যা চিহ্ণিত করেছে রাজ্য সরকার। তা সত্ত্বেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছেন যাত্রীরা। যার ফলে এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে।  রূপনারায়ণ নদে নৌকা ডুবির ঘটনা নিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন শুভেন্দু অধিকারী। পাশাপাশি তিনি বলেন, জলে পারাপার নিয়ে যাত্রীদেরও সচেতন হওয়া উচিত। প্রাশসনকে মাঝি লক্ষ্মণ পালের নামে এফআইআর করতে বলা হয়েছে। অনেকদিন আগেই ওই ঘাঁটটা বন্ধ করতে বলেছিলাম। ইতিমধ্যেই ৩৪ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা গেছে। ওনাদের আঘাত রয়েছে। অল্প কিছু সংখ্যক লোককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 

এদিন  শুভন্দুবাবু বলেন, বৈধ ঘাঁটের ক্ষেত্রে সর্বদা জলসাথীর উদ্ধারবাহিনী থাকে। এছাড়াও কোনও ধরনের দুর্ঘটনা থেকে বাঁচতে লাইফ জ্যাকেটেরও বন্দোবস্ত করা হয়। বেআইনি ঘাঁটের ক্ষেত্রে সরকার সেই সুবিধাগুলি দেয় না। এগুলি একেবারে দেশি ভুটভুটি। এতে যাত্রা করা কোনওভাবেই নিরাপদ নয়।

এদিন সকালে রূপনারায়ণে নৌকাডুবিকাণ্ডে ৩০ জন যাত্রীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। নিখোঁজদের মধ্যে অনেক মহিলা ও শিশু ছিলেন। জানা গেছে,এদিন সকালে পূর্ব মেদিনীপুরের মায়াচর থেকে মহিষাদলের দিকে আস ছিল নৌকাটি। কমপক্ষে নৌকায় ৪০-এর বেশি যাত্রী ছিলেন। মাঝে চরায় আটকে যাওয়ায় জোয়ারের জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন মাঝি। কিন্তু হঠাৎ প্রবল বেগে জোয়ারের জল আসায় মাঝপথেই উল্টে যায় নৌকা। তলিয়ে যান অনকেই। কিছু যাত্রীকে উদ্ধার করতে সমর্থ হলেও বহু লোক এখনও নিখোঁজ।