বাঙালির দুঃসাহিক ভ্রমণের অনেক গল্পই শোনা যায়। এভারেস্ট অভিযান থেকে দুর্গম পাহাড়। অনেক কিছুই জয় করেছে বাঙালিরা। কিন্তু তা বলে মঙ্গল গ্রহে জমি কেনার কথা কেউ শুনেছেন কি? শুনতে অবাক লাগলেও এমনই কাণ্ড ঘটিয়েছেন হুগলির বাসিন্দা শৌনক দাস নামে এক যুবক। মঙ্গল গ্রহের কেনার জমির কাগজপত্র ইতিমধ্য়েই তাঁর কাছে এসে গিয়েছে বলে নিজেই জানিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নিয়ে, বুক ফুলিয়ে বলছেন আমি গর্বিত বাঙালি।

শ্রীরামপুরের বাসিন্দা শৌনক দাস জানিয়েছেন, মঙ্গল গ্রহে এক একর জমি কিনেছেন তিনি। কেনা ওই জমির দাম পড়েছে মাত্র তিন হাজার টাকা। সেখানে  কোথায় জমি আছে, তার দলিল সহ সমস্ত কাগজপত্র ইতিমধ্য়েই পেয়ে গিয়েছেন বলে জানিয়েছেন শৌনক। শুধু তাই নয়, শৌনকের নাম খোদাই একটি চিপ মঙ্গলের উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছে।

জানা গিয়েছে, নাসার এক সংস্থার সাহায্য়ে ওই জমি কেনার ব্যবস্থা করেছিলেন শৌনক। জমির দামও ঠিক করে দিয়েছিল সংশ্লিষ্ট সংস্থাটি। টাকা পয়সা মেটানোর পর জমির কাগজপত্র তাঁর হাতে চলে আসে। যদিও, চাঁদে জমি কেনার কর্তৃত্ব অর্জন করেছে বাঙালি। তবে মঙ্গলে জমি কেনার প্রথম অর্জন করলেন শৌনক।

অন্যদিকে, মঙ্গলে জমি কেনার পাশাপাশি আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ সেরে ফেলেছেন শৌনক। সদ্য় বিয়েও করেছেন তিনি। অনেকে বলছেন, মধুচন্দ্রিমা করতে মঙ্গলে পাড়ি দিতে পারেন। যদিও, এবিষয়ে তাঁর কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। মঙ্গল গ্রহে জমি কিনলেও কিছুটা চিন্তিত তিনি। জমির রক্ষণাবেক্ষণ কীভাবে হবে তা নিয়ে নকশা তৈরিতে ব্য়স্ত রয়েছেন শ্রীরামপুরের শৌনক।