কয়লাপাচার ও গরু পাচারকাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত প্রাক্তন যুব তৃণমূল নেতা বিনয় মিশ্রকে নিয়ে নতুন তথ্য সামনে আনলেন বিজেপি নেতা তথা বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। ফেরার বিনয় মিশ্রর তৃণমূলে যোগ নিয়ে অনেক দিন ধরেই সরব হয়েছিলেন তিনি। আর এবার নির্বাচন কমিশনের কাছে তিনি বিনয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে চলেছেন।  

আরও পড়ুন- মুকুলকে বরণ করলেন অভিষেক, শুভেন্দুর কথা উঠতেই খেপে গেলেন মমতা

শুক্রবার একটি টুইট করেন শুভেন্দু। সেখানে পাশাপাশি দুটি কাগজকে সামনে এনেছেন তিনি। একটিকে বিনয়ের বিদেশি নাগরিকত্ব সংক্রান্ত নথি বলে দাবি করা হয়েছে। আর অন্যটিতে সর্বভারতীয় যুব তৃণমূল কংগ্রেসের ২০২০-র ২৩ জুলাইয়ের একটি বার্তা রয়েছে। যেখানে সংগঠনের একটি কাগজে যুব তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের তালিকায় ৭ নম্বরে রয়েছে বিনয়ের নাম।

এই দুটি ছবি পোস্ট করে শুভেন্দু লেখেন, "২০১৮ সালে ভারতীয় নাগরিকত্ব ছেড়ে ভানুয়াতুর নাগরিকত্ব নেন বিনয় মিশ্র। ২০২০ সালে ওই একই ব্যক্তিকে তৃণমূলের যুব শাখার সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এই বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইছি। ভারতীয় আইন কি কোনও বিদেশিকে কোনও রাজনৈতিক দলের অংশ হওয়ার অনুমতি দেয়?"  

 

 

এদিকে সম্প্রতি দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন শুভেন্দু। সেখানে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় বিনয় মিশ্রর প্রসঙ্গ তুলেছিলেন তিনি। তবে প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর বিনয়কে নিয়ে কোনও কথা হয়েছিল কি না তা অবশ্য স্পষ্ট করে জানাননি। সেদিন তিনি বলেছিলেন, বিনয়কে বাংলার কোনও পুলিশ আধিকারিকই শংসাপত্র দিয়েছিলেন। সেই কারণেই তিনি বিদেশে যেতে পেরেছিলেন। যে পুলিশ আধিকারিক তাঁকে শংসাপত্র দিয়েছিলেন তাঁর খোঁজও চলছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

গত বছর ২২ ডিসেম্বর দুবাইয়ের ভারতীয় দূতাবাসে পাসপোর্ট জমা দিয়েছিলেন বিনয়। সেখানেই ভানুয়াতুর নাগরিকত্ব নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন তিনি। সেই খবর পেয়ে পদক্ষেপ করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তাঁকে খোঁজার জন্য এখন ইন্টারপোলের সাহায্য নিচ্ছে সিবিআই। ইতিমধ্যে বিনয়ের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করা হয়েছে।