ডালিয়া সরকার, প্রতিনিধি, সুদূর জলপাইগুড়ি জেলার সঙ্গেও নিবির সম্পর্ক ছিল কবি শঙ্খ ঘোষের। জলপাইগুড়ি  শহরের উকিল পাড়া একটা সময় যাতায়াতছিল তাঁর। কারণ এই পাড়াতেই  প্রয়াত কবি শঙখ ঘোষের শ্বশুরবাড়ি।  শঙ্খ ঘোষের প্রয়াত  শ্বশুর সত্যেন্দ্রপ্রসাদ বিশ্বাসের বাড়ি ছিল। যদিও বর্তমানে তা আর নেই। ২০১৮ সালে সেই বাড়ি বিক্রি হয়ে যায়। তবে পুরনো সেই বাড়ির পাশে তৈরি হওয়া একটি নতুন ফ্ল্যাটে থাকেন প্রয়াত কবির ভাইঝি  পারমিতা ঘোষ ও তার স্বামী শেখর কর। ২০১৮ সালে উকিল পাড়ার হরি কুটির নামে বাড়িটি বিক্রি হয়ে যাওয়ার পরেও উকিল পাড়ায় পারমিতা ও শেখর করের বাড়িতে নিয়মিত আসতেন শঙ্খ ঘোষ। 

জলপাইগুড়িতে একটা সময় নিয়মিত আসা যাওয়া ছিল তাঁর। শ্বশুর বাড়ি ও ভাইঝির বাড়ি- দুটি বাড়ি থেকেই নাকি বহু কবিতা লিখেছেন। ১৯৬৮ সালের জলপাইগুড়ির ভয়াবহ বন্যা নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানো, কলকাতায় ত্রান সংগ্রহ করে তা জলপাইগুড়ি নিয়ে এসেছিলেন।  বন্যা নিয়ে কবিতা ছাড়াও জেলার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কবিতা লিখেছেন।জলপাইগুড়ি তে গরমের ছুটি বা শীতেও আসতেন।তবে উকিল পাড়ার বাড়িতে এলে কবিতা নিয়ে খুব কম আলোচনা করতেন। পরিবার, আত্মীয় স্বজনের সাথেই আড্ডা দিতেন।নিজেকে ঘন্টার পর ঘন্টা উকিল পাড়ার বাড়িতে নাইট ল্যাম্প জ্বালিয়ে একাকী থাকতেই ভালবাসতেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় কবি শঙ্খ ঘোষের। এদিনই কলকাতা আবারও চোখের জলে বিদায় জানায় তার আরও এক প্রিয় কবিকে। অন্যদিকে নিঃশব্দে চোখের জল ফেলে কবির স্ত্রীর জেলা জলপাইগুড়িও। কবির শ্বশুরবাড়ির শহর বললেও খুব একটা ভুল হবে না।