শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-করোনা আবহে কাজের আশায় কল্য়াণী থেকে বনগাঁয় এসে প্রতারণার শিকার হলেন এক যুবক। তাঁকে কাজ পাইয়ে দেওয়ার নামে বনগাঁয় ডেকে এক ব্যক্তি। কলকাতায় ফটোশুটের কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে পাঁচ হাজার টাকা নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। পরে তাঁর কেপমারি করে। স্বর্বস্ব খুইয়ে অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন যুবক।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বনগাঁ এলাকায়। কলকাতায় ফটোশ্যুটের ভাল কাজ পাবেন বলে কল্যাণী থেকে বনগাঁয় এসেছিলেন যুবক কৌশিক হালদার। সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন এলাকার বাসিন্দা বন্ধু সঞ্জীব লোধকে। কিছুদি আগে মিশর আলি নামে এক ব্য়ক্তির সঙ্গে পরিচয় হয় কৌশিকের। সেই মিশর আলি কৌশিককে কলকাতায় ভাল ফটোশ্য়ুটের কাজ দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়ে কল্য়াণী থেকে বনগাঁ আনে। বুধবার রাতে মিশর আলি নামে ওই যুবক কৌশিক ও তাঁর বন্ধুকে বনগাঁরা হিরালাল গলিতে নিয়ে আসে সেখানে বলে কলকাতার কাজের মালিককে পাঁচ হাজার টাকা দিতে হবে। সেই মতো মিশর আলিকে পাঁচ হাজার টাকা দেয় কৌশিক। তারপর, কৌশিকের মোবাইল থেকে তাঁর ছবি প্রিন্ট করার নামে মোবাইল নিয়ে যায় মিশর আলি। তাঁকে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে থাকতে বলে। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ মিশর আলি না আসায় সন্দেহ হয় কৌশিকের।

আরও পড়ুন-রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ভাঙলেই, তখনই আমার হস্তক্ষেপ, বিস্ফোরক মন্তব্য রাজ্যপালের

এরপরই বিষয়টি আশেপাশের দোকানদারদের জানায় কৌশিক। তাঁর নিজের মোবাইলে ফোন করলেও কোনও উত্তর পাইনি কৌশিক। তখন সে জানতে পারেন মিশর আলি নামে ওই ব্যক্তির কাছ থেকে প্রতারণার শিকার হয়েছেন কৌশিক। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, একইভাবে আগেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে এখানে। তাঁদের পরামর্শ মতো বনগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন কৌশিক ও তাঁর বন্ধু সন্ধীপ। ফোনের সূত্র ধরে প্রতারকদের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ।