শেষ পর্যন্ত এক সপ্তাহ ধরে ভোগান্তি চলার পরে অবশেষে আজ কাটতে পারে রাজ্যের চিকিৎসা সংকট। সবকিছু ঠিকঠাক চললে এ দিন বেলা তিনটের সময় নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে বসতে পারেন আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকরা। অন্যদিকে চিকিৎসকদের উপরে নিগ্রহের প্রতিবাদে আজ দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে চিকিৎসকদের সবথেকে বড় সংগঠন আইএমএ। তার ফলে সরকারি হাসপাতালের সঙ্গে কলকাতা-সহ গোটা দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলিতেও ওপিডি পরিষেবা বন্ধ থাকবে। 

এ দিন নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন জুনিয়র চিকিৎসকদের ১৮ জনের একটি প্রতিনিধি দল। আন্দোলনকারীদের দাবি মতো ওই দলে প্রতিটি মেডিক্যাল কলেজ থেকে দু' জন করে প্রতিনিধি রাখা হয়েছে। তবে আন্দোলনকারীদের দাবি মেনে সংবাদমাধ্যমকে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে দিতে নারাজ সরকার। সরকারের এই আপত্তি শেষ পর্যন্ত আন্দোলনকারীরা মেনে নেন কি না, তা নিয়েই কিছুটা সংশয় অবশ্য এখনও রয়েছে। 

মুখ্যমন্ত্রীর বার বার আলোচনায় বসার আহ্বান জানানো এবং সরকারের তরফে অধিকাংশ দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও বৈঠকে বসার জন্য নতুন নতুন শর্ত দিয়ে অনড় অবস্থান বজায় রাখছিলেন আন্দোলনকারীরা। এর ফলে জনমানসেও তাঁদের মনোভাব নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত রবিবার কিছুটা সুর নরম করে সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেন আন্দোলনকারীরা। তাতে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে প্রশাসনও। এখন দেখার, সাত দিনের টানাপোড়েনের পরে অবশেষে বরফ গলে কি না। সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছেন সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা হাজার হাজার রোগী এবং তাঁদের পরিজনেরা।