লোকসভা ভোটের আগে তাঁর অনেক চেষ্টাতেও সেভাবে দানা বাঁধেনি বিজেপি বিরোধী মহাজোট। নির্বাচনের ফলাফলেও মুখ থুবড়ে পড়েছিল বিরোধী দলগুলি। তার পরেও বিজেপি বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলির ঐক্যে ফাটল ধরতে দিতে নারাজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার ডিএমকে নেতা স্ট্যালিনের আমন্ত্রণে চেন্নাই যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। 

গত বছর ৭ অগাস্ট প্রয়াত হন ডিএমকে নেতা এবং তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এম করুণানিধি। আগামী ৭ তারিখ তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে চেন্নাইয়ে প্রয়াত নেতার মূর্তির উদ্বোধন করা হবে। সেই অনুষ্ঠানেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে নিজে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন করুণানিধি পুত্র স্ট্যালিন। সেই আমন্ত্রণে সাড়া দিয়েই চেন্নাই যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী। 

সূত্রের খবর, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত দিয়েই করুণানিধির মূর্তির উদ্বোধন করা হতে পারে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাও অনুষ্ঠানে হাজির থাকতে পারেন। তবে তাঁদেরকেই আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে, যাঁরা বিজেপি বিরোধী। যদিও এই অনুষ্ঠানে সরকারিভাবে কোনও রাজনৈতিক রং লাগতে দিতে নারাজ ডিএমকে। 

লোকসভা নির্বাচনে এ রাজ্যে তৃণমূলের ফল খারাপ হলেও বিজেপি বিরোধী আন্দোলনে লাগাম টানতে নারাজ মুখ্যমন্ত্রী। একদিকে যেমন রাজ্যে বিজেপি-কে রোখার ঘুঁটি সাজাচ্ছেন তিনি, একইসঙ্গে সর্বভারতীয় স্তরেও ইভিএমের বদলে ব্যালট ফেরানোর দাবিতে সমমনোভাবাপন্ন দলগুলিকে নিয়ে নতুন আন্দোলন গড়ে তুলতে চান তৃণমূলনেত্রী।