বিরোধী নেতারা তাঁর দলের নেতাদের দুর্নীতি নিয়ে বার বার অভিযোগ তুলছেন। তারপ পাল্টা জবাব দিয়েছেন তিনিও। কিন্তু রাজ্যে শেষ দুই দফার ভোটের আগে তৃণমূল নেত্রী নিজেই স্বীকার করে নিলেন, দলের টিকিটে নির্বাচিত একশ্রেণির মানুষের ভূমিকায় মানুষ ক্ষুব্ধ। তাঁদের তিনি সতর্ক করে দিয়েছেন বলে এ দিন প্রকাশ্য সভা থেকে দাবি করেন মমতা।

এ দিন দমদমের প্রচার সভা থেকে দলীয় নেতাদের একাংশের আচরণ নিয়ে সরব হন মমতা। তাঁর কথায়, "কাজ করতে  গেলে সবারই ভুল হয়, আমারও হয়েছে" তবে একই সঙ্গে দলের নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ব্যক্তিগতভাবে কেউ ভুল কাজ করলে দল তার দায়িত্ব নেবে না। এ দিনও তিনি বেশ কয়েকটি পুরসভার চেয়ারম্যানদের তিনি সতর্ক করে দিয়েছেন বলে দাবি করেছেন তৃণমূল নেত্রী। কয়েকজন পুরসভার চেয়ারম্যানদের তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, তাদের উপরে মানুষ ক্ষুব্ধ রয়েছেন। ফলে তাঁরা যদি সতর্ক না হন, তিনি নিজেই দায়িত্ব নিয়ে নেবেন বলে জানিয়ে দেন মমতা। 

মিটিংয়ের শেষ দিকেও দলের কারো উপর ব্যক্তিগত ভাবে রাগ করে থাকলেও এখন ভুলে যেতে বলেন মমতা। বরং সেসব ভুলে দেশ, সংবিধান বাঁচানোর ডাক দেন মমতা. তিনি দাবি করেন, বিজেপি ফিরলে দেশ থেকে নির্বাচনই তুলে দেবে। 

রাজ্যে প্রচারে এসে বার বার তাঁর দল এবং সরকারের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ তুলেছেন নরেন্দ্র মোদী- অমিত শাহরা। কখনও কখনও সরাসরি তাঁর দিকে তোলাবাজির আঙুল তুলেছেন বিজেপি নেতারা। এ দিন তাঁর জবাব দিয়েছেন মমতা. তিনি বলেন, "জীবনে কারো থেকে এক পয়সা নিইনি। মুখ্যমন্ত্রী হলেও এখনও সরকারি অতিথিনিবাসে ভাড়া দিয়ে থাকি। চা খেলেও পয়সা দিয়ে খাই।" 

মমতা আরও দাবি করেন, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী থাকার সময়ও সরকারের বিভিন্ন ভাতা তিনি নেননি। প্রাক্তন সাংসদ হিসেবে এক লক্ষ টাকা করে নেওয়ার সুযোগ থাকলেও তিনি তা নেননি বলে জানিয়েছেন মমতা। তাাঁর দাবি, তিনি একাই সরকারের কয়েক কোটি টাকা বাঁচিয়েছেন।
 
এর পরেই মমতা বলেন, আমার বিশ্বাসযোগ্যতার সার্টিফিকেট কি আমি নরেন্দ্র মোদীর থেকে নেব, যে দশ কোটি টাকার কোট বিক্রি করে? মমতা বলেন, "সব সহ্য করতে পারি, কিন্তু আমাকে তোলাবাজ বললে সহ্য করব না।" এ রাজ্যে ভাল ফল করা নিয়ে বিজেপি-র দাবিকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, "পাগল কুকুরে কামড়ালে জলাতহ্ক হয়, আর এরা হারাতঙ্কে ভুগছে।"

এ দিন দমদমের তৃণমূল প্রার্থী সৌগত রায়ের ভূয়সী প্রশংসা করেন মমতা। তিনি বলেন, সংসদে এখন গুণী সাংসদের অভাব রয়েছে। তাই ফের একবার সৌগত রায়কে নির্বাচিত করার আবেদন জানান মমতা।