ফের প্রেমিকার বাড়ির সামেন ধর্না। কিন্তু এবার আর মধুরেণ সমাপয়েৎ নয়। প্রেমিকার বাড়িতে ধর্নায় বসতে এসে গ্রেফতার হল প্রেমিক ও তার সহপাঠী। ঘটনায় শোরগোল ছড়ায় এলাকায়। প্রেমিকার অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে প্রেমিককে।

জানা গিয়েছে হুগলি জেলার খানাকুল থানার কিশোরপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় মনোজিৎ হাইত পেশায় সোনার কারিগর। মনোজিতের সঙ্গে বেশ কিছুদিন ধরে ঘাটাল থানার ইড়পালা গ্রামের এক যুবতীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল।  বেশ কিছুদিন ধরেই তাদের সম্পর্কে টানাপোড়েন চলতে থাকে বলে জানা যায়। সেই জন্য মনোজিৎ তার সহপাঠীদের নিয়ে বৃহস্পতিবার ঘাটাল থানার ইড়পালা গ্রামে ওই নাবালিকার বাড়ির সামনে হাতে প্লাকার্ড নিয়ে ধর্নায় বসে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে।

তার কিছুক্ষণ পরেই পুলিশ এসে মনোজিৎ ও তার এক বন্ধুকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এক নাবালিকাকে জোর করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে তাকে। এমনকী, জোর করে তুলে নিয়ে যেতে  কয়েজন যুবক এসেছিল বলেও জানা গিয়েছে। এলাকাবাসীরা তাদের তখন আটকে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাদের আটক করে। যদিও অভিযুক্ত মনোজিৎ এর দাবি, দীর্ঘদিন ধরে ওই মেয়েটির সঙ্গে তার ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। তাই সে ভালোবাসা আদায়ের জন্যই তার বাড়ির সামনে এসে ধর্নায় বসেছিল।  কিন্তু তাকে মিথ্যে অভিযোগে ফাঁসানো হচ্ছে। 

মেয়েটির  বাবা রবীন্দ্র রায় বলেন, আমার মেয়েকে দীর্ঘ দিন দরে উত্তক্ত করত এই যুবক। আজকের ঘটনা পুলিশকে জানিয়েছি। তবুও মনোজিতের একটাই দাবি, একদিন না একদিন আমার ভালবাসার সত্যতা প্রমাণিত হবে।