পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল নিয়ে ঢোকা যাবে না। কিন্তু সেই নিয়ম আনতে মানছে কে! মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের এবার মেটাল ডিটেক্টর  দিয়ে তল্লাশি করার সিদ্ধান্ত নিল স্কুল কর্তৃপক্ষ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে। বেজায় ক্ষুদ্ধ অভিভাবকরা।

আরও পড়ুন: প্রশ্নপত্র ফাঁসের 'হ্যাটট্রিক', এবার পরীক্ষা শুরুর আগেই হোয়াটসঅ্যাপে মিলল ভূগোলের পেপার

গত বার 'সাতে সাত' হয়েছিল। হাজার চেষ্টা করে এবারও মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস ঠেকানো যায়নি। প্রথম দু'দিন পরীক্ষা শুরু হতে না হতেই হোয়াটসঅ্যাপে ছড়িয়ে পড়ে প্রশ্নপত্র। বৃহস্পতিবার আবার ভুগোল পরীক্ষা শুরুর আগেই প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যায়। কিন্তু প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে ছড়াচ্ছে কী করে? তাহলে কি পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল নিয়ে ঢুকে পড়ছে পরীক্ষার্থীরাই? আশঙ্কা তেমনই। বস্তত, বুধবার মাধ্যমিকের ইংরেজি-এর প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে হোয়াটসঅ্যাপ করার অভিযোগে মালদহে এক পরীক্ষার্থীকে আটকও করা হয়। এবার পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার আগে রীতিমতো মেটাল ডিরেক্টর দিয়ে তল্লাশি করা হল পড়ুয়াদের!

আরও পড়ুন: মাধ্যমিকের মাঝে মাইক বাজিয়ে মেলার উদ্বোধন, বিতর্কে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়

উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর স্টেট ফার্ম কলোনি হাই স্কুলে যাদের মাধ্যমিক পরীক্ষার সিট পড়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে তাদের শরীরে মেটাল ডিটেক্টর ঠেকিয়ে তল্লাশি করে পুলিশ! কিন্তু কেন? জানা গিয়েছে, পরীক্ষাকেন্দ্রে যাতে কোনও পড়ুয়া মোবাইল নিয়ে ঢুকতে না পারে, তাই এমন ব্যবস্থা করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষই।  এদিকে স্কুলের বাইরে এভাবে তল্লাশির চালানোর সিদ্ধান্ত বেজায় ক্ষুদ্ধ অভিভাবকরা। তাঁদের বক্তব্য. পড়ুয়ারা তো আর অপরাধী নয়। তাই মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করা ঠিক নয়। শুধু তাই নয়, এই ঘটনায় পরীক্ষার আগেই তারা মানসিকভাবে বিপর্যস্তও হয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।