লোকসভার ছায়া পড়ল বিধানসভাতেও। শপথ বাক্য পাঠ করার পরে কেউ বললেন জয় শ্রীরাম, কেউ বললেন জয় হিন্দ। যার জেরে ক্ষুব্ধ হলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ও। 

মঙ্গলবার লোকসভায় শপথবাক্য পাঠ করার পরে বিজেপি-র বেশ কিছু সাংসদ জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেন। তার পাল্টা তৃণমূল সাংসদরা জয় হিন্দ, জয় বাংলার মতো স্লোগান দিতে থাকেন। তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তো কালী মন্ত্রও পাঠ করে ফেলেন।

এ দিন রাজ্য বিধানসভায় উপনির্বাচনে জয়ী বিধায়কদের শপথগ্রহণ ছিল। লোকসভার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয়, তা নিশ্চিত করতে আগাম সতর্কতা নেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। লিখিত বয়ানের বাইরে কেউ যাতে শপথগ্রহণের সময় অন্য কোনও স্লোগান না দেন বা কিছু না পড়েন, তা নতুন বিধায়কদের আগাম জানিয়ে রাখেন তিনি। 

তার পরেও অবশ্য মালদহের হবিবপুরের বিজেপি বিধায়ক জোয়েল মুর্মু শপথবাক্য পাঠ করার পরে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেন। আবার তৃণমূল বিধায়ক ইদ্রিশ আলি শপথগ্রহণের শেষে জয় হিন্দ বলে ওঠেন। এতেই বিরক্তি প্রকাশ করেন অধ্যক্ষ। বিমানবাবু বিধায়কদের বলেন, 'আমি বার বার আপনাদের নিষেধ করেছিলাম লিখিত বয়ানের বাইরে অতিরিক্ত কিছু না বলতে। তার পরেও কেন আপনারা স্লোগান দিলেন?' শপথ বাক্যের বাইরে উচ্চারিত অংশ রেকর্ড থেকে বাদ দিতেও নির্দেশ দেন অধ্যক্ষ। পার্থ চট্টোপাধ্যায়, আব্দুন মান্নানের মতো সিনিয়র বিধায়করাও এই ঘটনার নিন্দা করেন।