ফের রাজ্যে মাথাচাড়া দিল ছেলেধরা গুজব। পুলিশের সামনেই পাথর দিয়ে মাথা থেঁতলে ছেলেধরা সন্দেহে এক বহুরুপী যুবককে(৩২) পিটিয়ে মারল উত্তেজিত জনতা। সোমবার সকালে ডুয়ার্সের নাগরাকাটায় সুখানি বস্তিতে এই নৃশংস ঘটনাটি ঘটে। এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত সন্দেহে কয়েকজন যুবককে আটক করেছে। মৃত যুবকের পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

নাগরাকাটার সুখানি বস্তি এলাকায় গত কয়েকদিন ধরে ছেলেধরা গুজবে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল। ফলে অপরিচিত কাউকে এলাকায় দেখলেই স্থানীয়রা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করছিলেন। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে রাতে এলাকায় অ্যাম্বুল্যান্স পর্যন্ত আসতে চাইছে না। এলাকাবাসী লাঠি, বল্লম, তির ধনুক নিয়ে রাত পাহাড়া দিচ্ছেন।

মাঝে মধ্যেই ওই যুবক মেয়ে সেজে ছাতা হাতে এলাকায় আসতেন বহরূপী সেজে।কিন্তু স্থানীয় কিছু ব্যক্তি এ দিন তাঁকে এলাকায় দেখে আটকায়। স্থানীয়দের অনেকেই ওই বহুরুপী যুবককে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু উত্তেজিত জনতা বহুরুপীকে ছেড়ে দিতে চায়নি। লাথি, ঘুসি, চড়, থাপ্পড় মারার পর পাথর দিয়ে থেঁতলে যুবককে খুন করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার পরেও উত্তেজিত জনতাকে পাথর দিয়ে বহুরুপী যুবককে মারতে থাকে বলে অভিযোগ। তাঁকে উদ্ধার করে সুলকাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা ওই যুবককে মৃত বলে ঘোষণা করেন। 

মাল মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দেবাশিস চক্রবর্তী জানান, 'এলাকায় ছেলেধরা গুজব ছড়ালেও সেই ধরনের কোনও ঘটনাই ঘটেনি। গুজব ছড়ানোর অভিযোগে এবং যুবকটিকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। আমরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও যুবককে বাঁচানো যায়নি। আমরা মামলা করে তদন্ত শুরু করেছি। এলাকায় পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে। মাইকিং করে ছেলেধরা বা অন্য গুজব ছড়াতে নিষেধ করা হচ্ছে।'