ন' বছরের মেয়েকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল নিজের মায়ের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্য়কর এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার ক্যানিং থানার গোরস্থান ঘেরি এলাকায়। 

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার রাতে উত্তেজনা ছড়ায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতাল চত্বরে। পরে বিশাল পুলিশবাহিনী গিয়ে উত্তেজিত জনতাকে সরিয়ে দেয়। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, শিশুটির বাবা কর্মসূত্রে বাঁকুড়ায় থাকেন। ফলে নিজের মায়ের কাছেই থাকত পিয়াশা। প্রতিবেশীদের অভিযোগ, মৃত শিশুটির মায়ের সঙ্গে স্থানীয় এক যুবকের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। সেই সম্পর্ক আড়াল করতেই নানা অছিলায় মেয়েকে মারধর করত তার মা। এমনকী, নিজের মেয়েকে দিয়েই বাড়ির নানা রকম কাজ করাতো অভিযুক্ত গৃহবধূ। না পারলেই তার উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করা হতো। এ ছাড়া পরীক্ষার খারাপ ফল, পড়াশোনা নিয়েও নিজের মেয়ের উপরে নির্যাতন চালাত সে। 

মৃত শিশুটির আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের দাবি, মারধরের সময় বাধা দিতে এলে উল্টে তাঁদেরকেই অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করত ওই মহিলা। শনিবার রাতেও শিশুটিকে তার মা মারধর করে বলে অভিযোগ। অত্যাচারের জেরে শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রতিবেশীরাই তাকে উদ্ধার করে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানেই চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। শিশুটির শরীরের একাধিক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শিশুটির মৃত্যুর খবর পেয়েই হাসপাতাল চত্বরে ক্ষোভে ফেটে পড়েন প্রতিবেশীরা। অভিযুক্তকে গ্রেফতারের দাবি জানান তাঁরা। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। 

কীভাবে শিশুটির মৃত্যু হল তা জানতে দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। পাশাপাশি শিশুটির মা সহ চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।