সম্পত্তির লোভে শাশুড়িকেই বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল জামাই। আর সেই প্রস্তাবে শাশুড়ি সাড়া না দেওয়ায় তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করল জামাই। মৃতার নাম সাইরা বেওয়া (৪৯)। ঘটনা মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুরের সুতি থানার উল্লুপাড়া গ্রামে। স্থানীয়রা ঘটনার নিন্দা করছে। 

জানা গিয়েছে, শাশুড়িকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর সময়ে বাড়িরই এক নাবালক জামাইকে বাধা দিতে আসে। তখন তাকেও আক্রমণ করে জামাই আখিরুল শেখ। সেই নাবালককে উদ্ধার করে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার কথা জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। শাশুড়িকে খুন করেই এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয় জামাই। অভিযুক্ত আখিরুলকে গ্রেফতারের জন্য তার স্ত্রী শাহনাজ বিবি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। 

এই ব্যাপারে থানার ওসি সন্দীপ সেন বলেন,"অভিযুক্ত কে ধরতে সর্বত্র নজরদারি চালানো হচ্ছে। এমনকী, পার্শ্ববর্তী ঝাড়খণ্ড বর্ডারেও তল্লাশি চলছে।" এদিকে  মৃতার মেয়ে শাহানাজ বিবি থানায় স্বামী আখিরুলের নামে লিখিত অভিযোগ জানিয়ে বলেন, "আমি ভাবতেই পারছিনা এই ধরনের কাজও কেউ ঘটাতে পারে সামান্য সম্পত্তির জন্য। আমি আমার মায়ের হত্যাকারীর উপযুক্ত শাস্তি চাই।" 

সূত্রের খবর, জামাই আখিরুল তার শাশুড়ির ৪ বিঘে চাষের জমির লোভে তাঁকে  বিয়ের করতে চায়। শাশুড়ি তা প্রত্যাখ্যান করলে জামাই রেগে গিয়ে প্রথমে লাঠি ও পরে ধারালো অস্ত্রের কোপ মারে শাশুড়িকে। সেই ঘটনা দেখে নাবালক শ্যালক বাধা দিতে এলে তাকেও আক্রমণ করে আখিরুল। গুরুতর আহত অবস্থায় দুইজনকে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কিছুক্ষন পরে চিকিৎসকরা শাশুড়ি সাইরা বেওয়াকে মৃত ঘোষনা করেন।