১০৭ জন বিধায়ক খুব শিগগিরই তৃণমূলে যোগ দেবেন বলে দাবি করলেন বিজেপি নেতা মুকুল। তাঁদের মধ্যেই অধিকাংশই তৃণমূলের বলে দাবি তাঁর। মুকুলের এই দাবিকে উড়িয়ে অবশ্য তাঁকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি নেতাকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, 'ছেলেটাকে দলে রাখতে পারবেন তো?'

আরও পড়ুন- কাঁচরাপাড়া পুনর্দখল তৃণমূলের, 'চাণক্য' মুকুলকে 'মেড ইন চায়না' বললেন অভিষেক

এ দিন কলকাতায় সাংবাদিক বৈঠক করে মোট ১০৭ জন বিধায়ক বিজেপি-তে আসছেন বলে দাবি করেন বিজেপি নেতা। তাঁর এই দাবিতে স্বভাবতই চাঞ্চল্য ছড়ায়। তবে কবে বা কতদিনের মধ্যে ওই বিধায়করা বিজেপি-তে যোগ দেবেন, সে বিষয়ে কিছু বলেননি মুকুলবাবু। গোটাটাই রণনীতি এবং রণকৌশল বলে দাবি করেন তিনি। '১০৭ জন বিধায়ক দল ছাড়ার জন্য তৈরি। এর মধ্যে তৃণমূল, সিপিএম, কংগ্রেস সবাই আছে। কিন্তু তৃণমূলের বিধায়কের সংখ্যা বেশি।'

মুকুল যখন এই দাবি করছেন, তার কয়েক মিনিটের মধ্যেই তৃণমূল ভবনে পুরনো দলে যোগ দেন কাঁচরাপাড়া পুরসভার ৯ জন কাউন্সিলর। লোকসভা ভোটের পরে তাঁরা বিজেপি-তে গিয়েছিলেন। মুকুলের খাসতালুক কাঁচরাপাড়া পুরসভা পুনর্দখল করে মুকুল রায়কে পাল্টা আক্রমণ করেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি নেতার দাবিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, 'বলছেন ১০৭ জন বিধায়ক নাকি বিজেপি-তে আসবেন। নিজের পাড়ার দশটা কাউন্সিলরকে রক্ষা করতে পারেন না, তিনি আবার বড় বড় কথা বলছেন। বাংলায় নাকি উনি পরিবর্তন আনবেন। এ দিকে ভোটার হয়েছেন দিল্লির। নিজের ছেলেটাকে রক্ষা করতে পারবেন তো?' 

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন দাবি করেন, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে যে বিধায়ক বা কাউন্সিলররা গিয়েছেন, তাঁরা আবার পুরনো দলেই ফিরতে চাইছেন। 

শুক্রবার মুকুল রায়ের সঙ্গে বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তকে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে দেখা যায়। সেই প্রসঙ্গ তুলে অভিষেক বলেন, 'সাত দফায় যোগদানের পরে তৃণমূল উঠে যাবে বলেছিল। দু' দফায় বিজেপি থেকে কাউন্সিলররা আমাদের দলে ফিরতেই হাসপাতালে ছুটতে হচ্ছে। সবকটা দফা হলে আইসিইউ-তে থাকতে হবে।'