অষ্টমীর অঞ্জলী দিয়েও তৃণমূলকে বিঁধতে ছাড়লেন না বিজেপি নেতা মুকুল রায়। বলা ভাল নাম না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা। রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজত্বের সময় শেষ হয়ে এসেছে বোঝাতে গিয়ে মুকুল বললেন, 'বাংলার সরকারের এখন শুধু প্রতিমা বিসর্জনের অপেক্ষা।'

অন্যান্য বছরের মতো এবারও কাঁচরাপাড়ার বাড়িতেই অষ্টমীর অঞ্জলী দেন মুকুলবাবু। ছেলে শুভ্রাংশু-সহ পরিবারের সবাইকে নিয়েই অষ্টমীর পুজোয় অংশ নেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের মুকুলবাবু বলেন, 'দশমীতে পুরোহিত এসে ঘটটা নাড়িয়ে দেন, লাল সুতো ছিঁড়ে দেন। তার পরে প্রতিমা বিসর্জন হয়। বাংলার সরকারের অবস্থাও অনেকটা সেরকমই। ঘট ভাসান হয়ে গিয়েছে, লাল সুতো ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে, শুধুমাত্র প্রতিমাটা বিসর্জন হওয়া বাকি।'

শুধু তাই নয়, মুকুলবাবু আরও বলেন, 'মাকে বললাম, বাংলায় গত কয়েকবছর ধরে যে অশুভ শক্তির দাপাদাপি চলছে, সেই অশুভ শক্তির দাপাদাপি বন্ধ হয়ে বাংলার মানুষ যেন শান্তিতে বসবাস করতে পারে।'

এই মুহূর্তে নিজেও যথেষ্ট চাপে রয়েছেন মুকুল রায়। আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জার গ্রেফতারির পরেই মুকুলকে ডেকে পাঠিয়েছিল সিবিআই। মির্জাকে নিয়ে তাঁর ফ্ল্যাটেও হানা দেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। সাংবাদিকদের সামনে মুকুলকে নারদার থেকে পাওয়া টাকা দেওয়ার কথাও স্বীকার করে নিয়েছেন ধৃত পুলিশকর্তা। এই অবস্থা মুকুল তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন। এ দিন অবশ্য নিজের বাড়ির পুজোয় খোশমেজাজেই ছিলেন বিজেপি নেতা। পুজোর পরে নারদা কাণ্ডে তাঁর উপর সিবিআই চাপ আরও কতটা বাড়ে, সেটাই এখন দেখার।