ওষুধের দোকান থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হল এক কর্মীকে। এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার আমতলা এলাকায়। এই ঘটনায় খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে আহতের পরিবার।

আমতলার ওই ওষুধের দোকানেই কাজ করতেন  বছর পঁয়ত্রিশের যুবক অনুপ দলুই। সম্প্রতি দোকানের অন্যান্য কর্মীদের সঙ্গে তাঁর বচসা হয় বলে দাবি পরিবারের। ছেলেক খুন করার চেষ্টা হয়েছিল বলে মেন করছেন অনুপ দলুইয়ের পরিজনরা। বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগও দায়ের করেছেন তাঁরা।

এদিকে পয়লা ডিসেম্বর থেকে এই ওষুধের দোাকনটি বন্ধ করে দেওয়ার কথা মালিকের। কলকাতার একটি ওষুধের দোকানে কাজ করার কথা চলছিল অনুপের। তার আগে এই ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

প্রথমে রক্তাক্ত অনুপ দলুইকে আমতলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে পাঠান হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসা চলছএ অনুপ দলুইয়ের।

এই ঘটনার পিছনে পুরনো শত্রুতা না সহকর্মীদের সঙ্গে বচসা নাকি অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু করেছে বিষ্ণপুর থানার পুলিশ।