মুর্শিদাবাদ মানেই ইতিহাস আর স্মৃতির অমোঘ মেলবন্ধন। রথযাত্রাতেও তার কোন ব্যাতিক্রম ঘটল না। মুর্শিদাবাদ জেলার ২৫০ বছরের প্রাচীন নশীপুর আখড়ার  রথযাত্রায় দিনভর মাতল মানুষ। 

বাংলার ১১৬৮ বঙ্গাব্দে মুর্শিদাবাদের নশীপুর আখড়ার রথের সূচানা হয়। তদানীন্তন মহান্ত লছমন দাস আচারিয়া এই রথটি বাংলাদেশের ঢাকার উর্দূ বাজার থেকে মুর্শিদাবাদের নশীপুরে আনেন। তারপর থেকেই  রীতি মেনেই এক সঙ্গে ৫ টি রথের যাত্রা পালন হয়ে আসছে এখানে। 

এখানে এক এক করে মোট ৫ টি রথের  মধ্যে একটি সোনা-রুপা দিয়ে নির্মিত রথ রয়েছে। যার উচ্চতা প্রায় ১২ ফুট। একটি ২ পেতলের রথ রয়েছে যার উচ্চতা যথাক্রমে ২০ ফুট ও ২৫ ফুট। এছাড়াও বাকি ২ কাঠের রথ রয়েছে। প্রতিটি রথ আখড়া থেকে শোভাযাত্রা সহযোগে জগৎ শেঠের বাড়ি পর্যন্ত যায়। জগৎ শেঠ বাংলার ইতিহাসের সেই কুখ্যাত ব্যক্তি যিনি সিরাজের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছিলেন। এই রথ প্রথা মোতাবেক সাত দিন থাকে জগৎ শেঠের বাড়িতেই। উল্লেখ্য, আগে এই পঞ্চরথ কাঠেরই ছিল। ক্রমে সোনায় মোড়া হয়। মোহান্ত ভগবানদাস আচারি রথ তৈরির জন্যে রাজস্থান থেকে কারিগর আনান। 

এই জেলা-সহ জেলার বাইরে থেকে বহু মানুষ আসেন এই ৫  রথের যাত্রা দেখার জন্য।এই ব্যাপারে দায়িত্বে থাকা বর্তমান মোহান্ত রাঘব দাস আচারিয়া জানান, "সারা বছর মানুষজন অপেক্ষা করে থাকে এই ঐতিহ্যশালী ৫ টি রথ একসঙ্গে দেখার জন্য। এই রথযাত্রায় যোগদানকারী পর্যটক মুম্বাইয়ের রাহুল রায় বলেন,"বহু দিনের ইচ্ছে ছিল মুর্শিদাবাদের এই নশিপুর আখড়ার পঞ্চরথ যাত্রা দেখব।এবার তা পূরণ হল।এই দৃশ্য অভাবনীয়"।