শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত- অসহার পরিবারের সপ্তম ছাত্রী নাবালিকাকে কাজের লোভ দেখিয়ে ভিন রাজ্যে নিয়ে গিয়েছিল প্রতিবেশী যুবক। সেখানে নিয়ে দিনের পর লাগাতার ধর্ষণ করার অভিযোগ। শুধু তাই নয়,ওই নাবালিকার মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে। অবশেষে বাড়ি ফিরে প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করে নাবালিকা ও তার পরিবার।

পুলিশ সূত্রে খবর, বসিরহাটের পিফা গ্রাম পঞ্চায়েতের পাইকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ওই নাবালিকা ছাত্রীকে কাজের প্রলোভন দেখায় প্রতিবেশী যুবক সাদ্দাম গাজি। সে সম্পর্কে কাকা হয় ওই নাবালিকার। পরিবারের অসহতার সুযোগ নিয়ে কাজের নাম করে নাবালিকাকে অন্ধ্রপ্রদেশে নিয়ে গিয়েছিল সাদ্দাম। সেখানে নিয়ে ওই নাবালিকাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। বাড়িতে কিছু জানালে নাবালিকাকে হুমকিও দেয় বলে অভিযোগ। এখানেই থেমে না থেকে নির্যাতিতার মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। লকডাউনের সময় সে বাড়ি ফিরতে চাইলে তাকে বাধা দেয় সাদ্দাম। অবশেষে বাড়ি ফিরে গোটা বিষয়টি তার পরিবারকে জানায় নাবালিকা। 

পরিবারের লোকেরা বিষয়টি জানতে পেরে তীব্র প্রতিবাদ জানাই। প্রতিবেশী কাকা সাদ্দাম গাজীর বিরুদ্ধে এদিন রাতে বসিরহাট থানায় অভিযোগ দায়ের করে পরিবারের লোকেরা। ঘটনা জানাজানি হতেই বিপদ বুঝে এলাকা ছাড়া অভিযুক্ত যুবক। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছে নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবার।