কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এখনও বর্ধমান জংশন স্টেশনের নাম বদলের কোনও প্রস্তাব আসেনি। শুধু তাই নয়, রাজ্যের তরফে প্রস্তাব না পেলে স্টেশনের নাম বদল সম্ভব নয় বলেও বিবৃতি দিয়ে স্পষ্ট করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। 

গত কয়েকদিন ধরেই বর্ধমান স্টেশনের নাম বদলে বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্তের নামে করার খবরে জোর বিতর্ক ছড়িয়েছিল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এবং বিহারের বিজেপি সভাপতি নিত্যানন্দ রাই সম্প্রতি পটনায় বটুকেশ্বর দত্তর বাড়িতে গিয়ে এমনই ঘোষণা করেছিলেন। প্রসঙ্গত বর্ধমান জেলায় জন্মগ্রহণ করলেও স্বাধীনতার পরে পটনাতেই থাকতেন বটুকেশ্বর দত্ত।

কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এ দিন বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনও রেল স্টেশনের নাম বদলের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়ার ক্ষমতা  রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের হাতে। কিন্তু তার আগে নাম বদলের জন্য সংশ্লিষ্ট রাজ্যের তরফেই সুপারিশ পাঠাতে হয়। এর পরে রেল মন্ত্রক, বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি মন্ত্রক, সার্ভেয়র জেনারেল অফ ইন্ডিয়া এবং ভারতীয় ডাক বিভাগের তরফে  'নো অবজেকশন সার্টিফিকেট' বা এনওসি পেলে তবেই নাম বদলের সায় দেয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। 

কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এখনও রেল বা অন্যান্য মন্ত্রকগুলির কাছে বর্ধমান স্টেশনের নাম বদল সংক্রান্ত কোনও ছাড়পত্রই চাওয়া হয়নি বলে দাবি করা হয়েছে। ফলে, বর্ধমান স্টেশনের নাম বদল নিয়ে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল, তাতে আপাতত দাড়ি পড়ল। প্রথম মোদী সরকারের আমলে মোগলসরাই জংশনের নাম বদলে দীন দয়াল উপাধ্যায়ের নামে রাখা হয়েছিল। ফলে বর্ধমান স্টেশনের নাম বদলে বটুকেশ্বর দত্তের নামে করা হবে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই ঘোষণার পরেই শুরু হয় বিতর্ক।