চোপড়া কাণ্ডের প্রতিবাদে ভাঙচুরে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হল বিজেপির উত্তর দিনাজপুর জেলা সহ-সভাপতি সুরজিত সেনকে। শনিবার তাকে গ্রেফতার করার পর ইসলামপুর কোর্টে পাঠানো হয়। পুলিশ ধৃতকে দশ দিনের জন্য হেফাজতের আবেদন জানালেও জে এম ওয়ান কোর্টের বিচারক এদিন পাঁচ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন। 

সরকারি কৌঁসুলি মহম্মদ ওয়াসিম পারভেজ জানান, এর আগেও ওই ঘটনায় সুবোধ সরকার-সহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরপর গ্রেফতার করা হয় সুরজিৎ সেনকে। সম্প্রতি চোপড়ায় দুই কিশোর-কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনার পর রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর এবং সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে।

ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার সচিন মক্কর জানিয়েছেন, এদিন চোপড়ার ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে বিজেপি নেতা সুরজিৎ সেনকে গ্রেফতার করা হয়। এখন পর্যন্ত এই ঘটনায় মোট আঠাশ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা ডাঃ সৌম্যরূপ মন্ডল বলেন, পুলিশ ও প্রশাসন তৃণমূল কংগ্রেসের দলদাস হিসেবে কাজ করছে। এই ঘটনা তারই প্রমাণ। আমাদের বিচার ব্যবস্থার ওপর কোনোরূপ আস্থা নেই। এটি একটি আক্রোশজনক ঘটনা এবং অবশ্যই উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। শনিবার এগারো জনকে গ্রেফতার করে একই ঘটনায় দশ জনকে ছেড়ে দেওয়া হল এবং একজনকে পাঠিয়ে দেওয়া হলো চোপড়ায়। এ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।