পদোন্নতির কয়েকমাস পরেই পুলিশ আধিকারিকের রহস্যমৃত্যু। পুলিশ আবাসন থেকে উদ্ধার হল ঝুলন্ত দেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ফ্রেজারগঞ্জে। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।  

মৃতের নাম গৌতম বিশ্বাস। সুন্দরবন পুলিশ জেলার ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল থানার অফিসার ইন চার্জ বা ওসি ছিলেন তিনি। দক্ষিণ ২৪ পরগণার মন্দিরবাজার থানা থেকে কয়েকমাস আগে বদলি হন তিনি। সহকর্মীরা জানিয়েছেন, ওসি-র দায়িত্ব দক্ষ হাতেই সামলাচ্ছিলেন গৌতম। সকলের সুসম্পর্কও ছিল তাঁর।  বুধবার বড়দিন উপলক্ষ্যে নির্দিষ্ট এলাকায় ডিউটিও করেন ফ্রেজারগঞ্জ থানার ওসি। ডিজে বক্স বাজানো, প্লাস্টিক ব্যবহারের বিরুদ্ধে প্রচারও চালান বিভিন্ন জায়গায়। পুলিশ সূত্রে খবর,  ডিউটি সেরে রাত এগারোটা নাগাদ থানায় আসেন গৌতম, এরপর কোয়ার্টারে চলে যান। 

আরও পড়ুন: 'অজানা জ্বরে মৃত্যু', স্ক্রাব টাইফাসের আতঙ্ক এবার উত্তরবঙ্গে

আরও পড়ুন: বর্ষের শেষ উইকএন্ড, মেঘ কাটিয়ে জাঁকিয়ে শীত রাজ্য়ে

বৃহস্পতিবার বেলা গড়িয়ে গেলেও আর থানায় আসেননি গৌতম বিশ্বাস। তাঁকে ডাকতে থানা লাগোয়া কোয়ার্টারে যান পুলিশকর্মীরা। তাঁদের বক্তব্য, বাইরে থেকে ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি।কোয়ার্টারের জানলার কাছে গিয়ে দেখতে পান, ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলা ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলছেন থানার ওসি! ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। খবর পাঠানো হয়েছে  গৌতম বিশ্বাসের বাড়িতেও। কিন্তু আত্মহত্যা করলেন ফ্রেজারগঞ্জ থানার ওসি গৌতম বিশ্বাস? তা কিন্তু স্পষ্ট নয়। বরং এই ঘটনায় পুলিশমহলে নীচুতলায় প্রশ্ন উঠেছে।