হঠাৎ করেই কাশতে কাশতে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে এক অজ্ঞাত পরিচয় যুবক। আর তাতেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ে পুরুলিয়ার পিএন এস ঘোষ স্ট্রিটের বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন বছর ৩০- ৩২-এর ব্যক্তি এক চিকিৎসকের চেম্বারের সামনে বসেছিলেন। তারপরই আচকা কাশি হতে শুরু করে। তারপর এক সময় সব শেষ হয়ে যায়। রাস্তাতেই দীর্ঘক্ষণ পড়েছিল ওই ব্যক্তির নিথর দেহ। 

দীর্ঘক্ষণ পরে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুরুলিয়া সদর থানার পুলিশ। তারপর আরও প্রকট হতে থাকে অমানবিক ওই ছবি। কারণ পুলিশ কর্মীরা এলেও তাঁদের সঙ্গে ছিল না করোনা আক্রান্তের দেহ মুড়ে ফেলার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী। আর যেসব পুলিশ কর্মীরা মৃতদেহ সরাতে এসেছিলেন তাঁরাও প্রটোকল অনুযায়ী কোনও পিপিই পরে আসেননি। 

করোনাভাইরাস নিয়ে আরও ভয়ের কথা শোনাল আইএমএ, দেশে মহামারী গোষ্ঠী সংক্রমণের পর্যায়ে পৌঁছে গেছে ...
এক সিভিক ভলান্টিয়ার একটি বড় কালো প্ল্যাস্টিক পেতে একটি লাঠি দিয়ে দেহটি প্ল্যাস্টিকের ওপর তুলে দেন। তবে এক প্রচেষ্টা একবারে সফল হয়নি। দীর্ঘক্ষণ কসরত করতে হয় তাঁকে। তারপরই সফল হয় ওই সিভিক ভলান্টিয়ার। 
তিথি মেনে রাম মন্দিরের ভূমিপুজো হতে পারে অগাস্টের প্রথম সপ্তাহে, আমন্ত্রণ জানান হবে প্রধানমন্ত্রীকে ...

পুলিশ সূত্রের জানান হয়েছে মৃতদেহ স্থানীয় দেবন মাহাত হাসপাতালে পাঠান হয়েছে। সেখানেই হবে ময়না তদন্ত। প্রাথমিকভাবে জানান হয়েছে নিহত ব্যক্তি মুটের কাজ করত। তবে নিহত নাম পরিচয় জানারও চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে করোনা সংক্রমণের এই ভয়াবহ পুলিশ কর্মীরা কেন পিপিই ছাড়াই ঘটনাস্থলে এসেছেন তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। 

রবিবার সকালের প্রবল বৃষ্টিতে বানভাসী দিল্লি, রাজধানীর রাজপথ জলমগ্ন, দেখুন প্রকৃতির তাণ্ডেবের সেই ছবি