রাস্তায় পুলিশি টহল. এলাকায় লাগাতার নজরদারিতেও কাজ হচ্ছিল না। এবার বহিরাগত দুষ্কৃতীদের গতিবিধির উপরে নজর রাখতে আকাশপথকে বেছে নিল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশ। কয়েকদিন ধরেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত ছিল মেদিনীপুর সদর ব্লকের ছেড়ুয়া, কুয়েতপাড়া, হাতিহলকা- সহ একাধিক গ্রাম। বিজেপি- তৃণমূল সংঘর্ষে ভেঙেছে বাড়ি, পুড়েছে পার্টি অফিস, এমন কী আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে চায়ের দোকানেও। এলাকায সামলাতে একরকম হিমশিম খেতে হয়েছে জেলা পুলিশকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ পেতে গ্রামে চলছে পুলিশের টহলদারি। 

আরও পড়ুন- বাড়ির মধ্যেই বারো ফুটের পাইথন, আতঙ্ক পশ্চিম মেদিনীপুরে

এর পাশাপাশি গত তিন দিন ধরে ড্রোণের সাহায্যে আকাশপথেও এলাকার উপর নজর রাখছে পুলিশ। এলাকায় বহিরাগত কোনও দুষ্কৃতী প্রবেশ করলেই তা সহজে পুলিশের নজরে আসছে। একদিকে এলাকায় পুলিশি নিরাপত্তা বৃদ্ধি, অন্যদিকে আকাশপথে নজরদারি। দুইয়ের জেরে মঙ্গলবার সকালেক পরে পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। 

গ্রামে সংঘর্ষের জেরে বহু বাসিন্দাই ঘরছাড়া ছিলেন। পুলিশের আশ্বাস পেয়ে তাঁরাও আসতে আসতে গ্রামে ফিরছেন। বিজেপি-র অবশ্য অভিযোগ, ঘরছাড়া তৃণমূল কর্মীদের ফেরাতেই গ্রামে পুলিশি টহলদারি বেড়েছে। অন্যদিকে হেনস্থা করা হচ্ছে বিজেপি কর্মীদের। পুলিশ গ্রামে সন্ত্রাস সৃষ্টি করলে বৃহত্তর আন্দোলনের নামার হুমকি দিয়েছেন বিজেপির জেলা সভাপতি সমিত দাস।