আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  নেপথ্যে কি বিজেপি? অনুব্রত মণ্ডলের খাসতালুকে এবার শুভেন্দু অধিকারীর ছবি-সহ পোস্টা লাগালেন তাঁর অনুগামীরা। ভোটের মুখে তৃণমূলের অস্বস্তিতে বাড়ল আরও কয়েক গুণ।

আরও পড়ুন: ভোটের আগে শুভেন্দুর নামে কি নতুন দল, পুরুলিয়ার বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠান বাড়িয়ে দিল জল্পনা

বিধানসভা ভোটের মুখে কি বিজেপি যোগ দিচ্ছেন? খোদ পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে জোর জল্পনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। কারণ, লকডাউনের আগে থেকে তৃণমূলের কোনও কর্মসূচী দেখা যাচ্ছে না শুভেন্দুকে। এমনকী, দলের ব্য়ানার ছাড়াই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গিয়ে নিজেকে 'সমাজসেবী' হিসেবে। দিন কয়েক আগে পূর্ব মেদিনীপুরের প্রায় সর্বত্রই তাঁর নামে পোস্টার পড়েছিল। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, সেই পোস্টারে কোথাও কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি, এমনকী তৃণমূলের নাম ছিল না। এবার সেই একই ঘটনা ঘটল বীরভূমেও।

সিউড়ি শহরের বিভিন্ন জায়গায় শুভেন্দু অধিকারীর ছবি-সহ পোস্টার পড়েছে। পোস্টারের নীচে লেখা, 'আমার দাদার অনুগামী।' যদিও এই ঘটনাকে আমল দিতে নারাজ তৃণমূলের স্থানীয় নেতৃত্ব। শাসকদলের অন্দরে খবর, দুই মেদিনীপুর-সহ কয়েকটি জেলায় কিছুটা জনভিত্তি আছে ঠিকই। কিন্তু বীরভূমে শুভেন্দুর কার্যত কোনও গ্রহণযোগ্যতা নেই বললেই চলে। সরকারি অনুষ্ঠানে জেলায় কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে যোগ দেননি তিনি। এমনকী, যুব তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি ছিলেন, তখনও বীরভূমে আসেননি শুভেন্দু। তাহলে পোস্টার দিল কারা? তৃণমূল কংগ্রেসের সিউড়ি বিধানসভাকেন্দ্রের পর্যবেক্ষক বিকাশ রায়চৌধুরীর দাবি, 'এসবই বিজেপি ঘৃণ্য রাজনীতি। শুভেন্দুবাবু তৃণমূল সরকারের মন্ত্রী। তিনি দলেই আছেন, থাকবেনও।

আরও পড়ুন: প্রবল বিস্ফোরণে ছিন্ন ভিন্ন হয়ে গেল ঠিককর্মীর দেহ, ডিপিএলের কাজে আশঙ্কাজনক আরও ১

কী বলছে বিজেপি? দলের বীরভূম জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলের বক্তব্য. তৃণমূলে গৃহযুদ্ধ চলছে। তারই ফসল এটা। কারও নামে ভুয়ো পোষ্টার ঝুলিয়ে নোংরা রাজনীতি বিজেপি করে না। পরিবহণমন্ত্রী বহু জায়গাতেই বিভিন্ন ইস্যুতে সমালোচনা করেছেন নিজের দলের। দলের অনেকেরই তাঁর বক্তব্য ভালো লেগেছে, আবার অনেকের খারাপ লেগেছে। যাঁদের ভাল লেগেছে, তাঁরাই এই কাজ করে থাকতে পারেন।'