শেষ সময়ের প্রস্তুতিতেও বাদ সাধছে বৃষ্টি। জেলায় জেলায় মণ্ডপে ঢুকে পড়েছ জল। থিম পুজো থমকে গেছে প্রকৃতির খামখেয়ালিপনায়।
 
আশঙ্কা করা হয়েছিল গতকালই। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল, অন্ধ্রপ্রদেশে ঘূর্ণাবর্তের জেরে দক্ষিণবঙ্গের মৌসুমী বায়ু অনেক বেশি সক্রিয় হবে। যে কারণে দিনভর বৃষ্টি ভোগাবে দক্ষিণবঙ্গের  দুই ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর ছাড়াও হাওড়া ,হুগলি, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়াকে। এইসব জায়গায় সকাল থেকেই  ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বাস্তবে দেখা গেল হওয়া অফিসের সম্ভাবনাই সত্য়ি হল। 
কলকাতার হাওয়া মোরগ জানাচ্ছে,জেলা ছাড়াও  কলকাতাতেও  আজ মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি  হবে। সূর্য দেখার সম্ভাবনা কম। এই বৃষ্টির ফলে তাপমাত্রা থাকবে অনেকটা কম । তবে আগের মতো বাতাসে আদ্রতা থাকলেও অস্বস্তিকর গরমের পরিবেশ খানিকটা হলেও কমে যাবে। তবে শুধু দক্ষিণবঙ্গেই নয় , উত্তরবঙ্গে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারেও এদিন ভারী বৃষ্টি হবে।
 
ইতিমধ্য়েই দক্ষিণ ২৪ পরগনার বেশ কয়েকটি পুজোর কাজ থমকে গিয়েছে। রাত থেকে বৃষ্টি শুরু হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। সোনারপুরে মণ্ডপে আটকে গিয়েছে কাজ। একই অবস্থা বীরভূম ,পুরুলিয়াতেও। কলকাতা ছাড়াও দার্জিলিং,জলপাইগুড়িতে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী দিনভর এই বৃষ্টি চলবে।