এবার রাজীব কুমারের নিখোজঁ রহস্য নিয়ে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপের দাবি,মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতেই লুকিয়ে রয়েছেন রাজীব কুমার। রাজীবকে বাঁচাতে তাই মোদির দ্বারস্থ হচ্ছেন মমতা।

একে একে মমতা-মোদি সাক্ষাৎ নিয়ে মুখ্য়মন্ত্রীকে ব্যঙ্গ করে চলেছে বিজেপি ব্রিগেড। সবার মুখেই এক কথা। আগে ডাকলে যেতেন় না, এখন ডাকার আগেই মোদির দ্বারস্থ মমতা। শুধুই কি রাজ্যের উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা, না রাজীব কুমারকে বাঁচাতেই মোদির কাছে আবেদন রাখছেন মমতা। ইতিমধ্যেই মমতাকে রাজীব নিয়ে খোঁচা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন,'সোশ্যাল মিডিয়ায় মজা করে বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী দেখা করতে যাচ্ছেন যাতে রাজীব কুমারকে ছাড় দেওয়া হয়। কারণ রাজীব কুমার ধরা পড়লে যদি ওই ট্রাঙ্কগুলি খোলা হয়,তাহলে দিদির ভাইয়ের ছবি বেরোবে।'

রাজীব কুমারকে ফেরাল বারাসতের বিশেষ আদালত, আরও চাপে পুলিশকর্তা

মোদীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা মমতার, টেক্কা দিলেন রাহুল, অখিলেশদের

একই কথা বলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষের দাবি, 'মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতেই লুকিয়ে রয়েছেন রাজীব কুমার। কারণ কান টানলেই মাথা আসবে ৷ তাই তাকে লুকোনো আছে। এদিকে কলকাতা থেকে দিল্লিমুখো হচ্ছেন দিদিমণি , যদি কোনওভাবে রাজীবের গ্রেফতারি আটকানো যায় ৷ মনে রাখবেন, প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে প্রাচীর টপকে গিয়ে গ্রেফতার করেছে সিবিআই ৷ সিবিআই ঠিক রাজীব কুমারকে খুঁজে বের করবেই ৷' 

সোমবার রামজীবনপুরের সভা থেকে জঙ্গলমহলে শুভেন্দু অধিকারিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ।  এদিন তিনি বলেন, ' শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ রইল আজকের মতো সভা করে দেখাক ৷ মাওবাদী নকশালদের কাজে লাগিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল। তাদের মেরে নয়তো জেলে ভরেছিল ৷ আবার তাদের জেল থেকে ছাড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে ৷ আমরা জঙ্গলমহলে এসেছি বলে ওদের বের করা হচ্ছে। মনে রাখবেন,মাওবাদী নকশাল কারও আপন হয় না। আপনার নেতাদেরও বাড়ি ঢুকে গুলি,বোমা মারবে ৷ বিজেপির ওসবে ভয় নেই ৷'

কল্যাণেশ্বরী মন্দিরে যশোদা বেন, প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের আগে কার মঙ্গল কামনা করলেন তিনি, দেখুন ছবিতে

রাজীবকে বাঁচাতেই কি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ, সোশ্যাল মিডিয়ার নাম করে মমতাকে খোঁচা বাবুলের

এদিন ঘাটাল মহকুমায় তিনটি জনসভা করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ৷ তিনটি সভাতেই বিপুল পরিমাণে জমায়েত করে তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছেন তিনি ৷ সভা থেকে শাসক দল ছাড়াও সিভিক ভলেন্টিয়ারদের একহাত নিয়েছেন দিলীপ। তিনি বলেন, 'পুলিশের সঙ্গে সিভিকগুলোও অনেক কিছু করছে ৷আমাদের সভা হলে ছবি তোলে, বিকেলে ট্রাক থেকে টাকা তোলে ৷ পুলিশের চামচাগিরি করছো করো,কত টাকা ভিক্ষা পাও ?এত ফুটানি কীসের?বিজেপির পিছনে লেগোনা। '