ফের বিতর্কে জড়ালেন রাণাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। এক মহিলার সঙ্গে বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের অভিযোগ উঠল তাঁর বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, ওই মহিলার সঙ্গে কথোপকোথনের হোয়াটসঅ্য়াপ চ্য়াট করা 'স্ক্রিনশট' সম্প্রতি প্রকাশ্য়ে আসায় তীব্র অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি। যদিও, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন ওই বিজেপি সাংসদ। ভাবমূর্তি নষ্ট করতে তৃণমূল তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

আরও পড়ুুন- প্রণব স্য়ার যা পড়াতেন মনে থাকত, স্মৃতি চারণার প্রাক্তন ছাত্র

সূত্রের খবর, হোয়াটসঅ্য়াপে এক মহিলার সঙ্গে কথোপকথনের 'স্ক্রিনশট' বিভিন্ন মোবাইলে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। সেখানে জগন্নাথ সরকার  এবং ওই মহিলার ছবিও রয়েছে। মহিলাকে গোপনে ভাড়া ঘরে দেখা করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-করোনার থাবায় উধাও বিনোদন, কাজ হারানোর আশঙ্কায় অ্য়াকোয়াটিকার ১০০ শ্রমিক

এই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেন বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। তিনি দাবি করেন,''আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করতে ভুয়ো প্রোফাইল তৈরি করে, ভুয়ো ছবি তৈরি করা হয়েছে। আমি ওই মহিলাকে চিনি না, কোনও দিন দেখিনি। বিজেপির উথ্থানে তৃণমূল ভয় পেয়ে এসব কূকর্ম করে বেড়াচ্ছে। ফেসবুকেও স্ক্রিনশট পোস্ট করা হয়েছে।''

আরও পড়ুন- রেশনের চালে পোকা, নিম্নমানের সামগ্রী, উত্তেজনা ভাতারে

বিষয়টি নিয়ে সরব হয়ে মঙ্গলবার সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বিজেপি সাংসদ। তাঁকে কালিমালিপ্ত করতে বড়সড় চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন নদিয়া জেলা বিজেপি সাংগঠনিক সভাপতি অশোক চক্রবর্তীও। বিজেপি সাংসদের আচরণে সরব হয়েছে জেলা তৃণমূলও। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেনে নদিয়া জেলা তৃণমূল সভাপতি মহুয়া মৈত্র।