উপদ্রব চলছিল বেশ কয়েকদিন ধরে। কিন্তু বাড়ি চিলেকোটায় যে বিরলপ্রজাতির পেঁচারা বাসা বেঁধেছে, তা কে জানত! ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য মুর্শিদাবাদের বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া দয়ানগর এলাকায়। পেঁচাগুলিকে বনদপ্তরের হাতে তুলে দিয়েছেন বাড়ি মালিক।

আরও পড়ুন: মদ খেতে বাধা দেওয়ায় অন্তসত্বা স্ত্রীকে মেরে ঝুলিয়ে দিল স্বামী, তীব্র চাঞ্চল্য হরিদেবপুরে

বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া জেলা মুর্শিদাবাদ। স্থানীয় দয়ানগর এলাকায় থাকেন তুফান আলি। তাঁর দাবি, গত কয়েক দিন ধরে বাড়িতে পেঁচাদের উপদ্রব চলছিল। প্রথমে তেমন কিছু বোঝা যায়নি। তারপর? বাড়ির চিলেকোঠায় পায়রা পুষেছিলেন তুফান। সেই পায়রাগুলি যখন একে একে মারা যেতে শুরু করে, তখনই সন্দেহ হয় বাড়ির মালিকের। চিলকোটায় গিয়ে বিরল প্রজাতির পেঁচাগুলি হদিশ পান তিনি। ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।  খবর দেওয়া হয় বনদপ্তরে। ঘটনাস্থলে গিয়ে পেঁচাগুলিকে উদ্ধার করেন বন দপ্তরের আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন: মালদহ বিস্ফোরণে কারা মৃত-কারা আহত, জেনে নিন তাঁদের পরিচয়

উল্লেখ্য, নগরায়নের করতে গিয়ে নির্বিচারে গাছ হচ্ছে সর্বত্রই। কমছে বনভূমি, ঝোপ-ঝাড়। ফলে হারিয়ে যাচ্ছে পেঁচারাও। শহরের কথা ছেড়েই দিন, মফঃস্বলে, এমনকী গ্রামে চট করে এই নিশাচর পাখিটির দেখা মেলেনি।