বালুরঘাট দিবস পালিত হল শুক্রবার।  সালটা ছিল ১৯৪২, সারা দেশ তখন ইংরেজদের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা ভারত ছাড়ো আন্দোলনে কাঁপছে। ঠিক  তখনই বালুরঘাটের কৃতি সন্তান সরোজরঞ্জন চ্যাটার্জি, পুলিনবিহারী দাশগুপ্ত- সহ দশ হাজার মানুষ ১৯৪২ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে ২ দিনের জন্য বালুরঘাটকে ইংরেজ শাসন মুক্ত করেছিলেন। যে নজির গোটা দেশে তমলুক-সহ আর মাত্র পাঁচটি জায়গায় ছিল। 

এই ঐতিহাসিক ঘটনাকে স্মরন করে আজও দক্ষিণ দিনাজপুরের বাসিন্দারা প্রতি বছর বালুরঘাট দিবস পালন করেন। এই বছরও তার অন্যথা হয়নি।  এ দিন সকালে বালুরঘাটের ডাঙ্গিঘাট থেকে বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটির উদ্যোগে শোভাযাত্রা বের হয়। সেই শোভাযাত্রা আসে বালুরঘাটের টাউন হল সংলগ্ন এলাকায়। এর পর দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার জেলাশাসক নিখিল নির্মলের উপস্থিতিতে বালুরঘাট দিবস উদযাপন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে জেলাশাসক নিখিল নির্মল ছাড়াও অতিরিক্ত জেলা শাসক কৃত্তিবাস নায়েক, প্রণব ঘোষ, বিশিষ্ট আইনজীবী সুভাষ চাকি-সহ বিভিন্ন বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।  এই অনুষ্ঠানে জেলাশাসক জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে এবং শহিদ বেদীতে মাল্যদান করে সেই বীর স্বাধীনতা সংগ্রামীদের স্মরণ করেন। 

আরও পড়ুন- বালুরঘাটের স্বাধীনতার ইতিহাস এবার বড় পর্দায়, পুজোর আগেই আসছে '১৮ অগাস্ট'

এছাড়াও এ দিনের অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিশিষ্টজনেরা শহিদ বেদিতে  পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে বালুরঘাট দিবস পালন করেন। বালুরঘাটের কৃতি সন্তান সেই সমস্ত বীর সংগ্রামীদের স্মরণ করতে বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটির এই উদ্যোগে সামিল হয়েছিলেন অসংখ্য সাধারণ মানুষ। বালুরঘাটের এই ইতিহাস নিয়ে আজও গর্ববোধ করেন জেলার মানুষ।