বনগাঁ পুরসভার আস্থা ভোট নিয়ে এখনও মামলা চলছে কলকাতা হাইকোর্টে। এরই মধ্যে কচ্ছপ পাচার চক্রে যুক্ত থাকার অভিযোগে এক বিজেপি কাউন্সিলরের ছেলেকে গ্রেফতার করল পুলিশ। 

ধৃত ওই যুবকের নাম শেখর দাস। তিনি বনগাঁ পুরসভার চার নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর গীতা দাসের ছেলে। কয়েকদিন আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে  যোগ দিয়েছিলেন গীতাদেবী। 

আরও পড়ুন- আস্থা ভোট ঘিরে তুলকালাম বনগাঁয়, সংঘর্ষের মধ্যেই ফাটল স্টান গ্রেনেড, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন- বনগাঁ, হালিশহর নিয়ে ক্ষোভ আদালতের, আস্থা ভোটে অস্বস্তি রাজ্যের

যদিও, গীতাদেবীর ছেলে শেখর দাসের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ এনেছে পুলিশ। অভিযোগ, বিরল প্রজাতির বিভিন্ন কচ্ছপ বেআইনিভাবে বিভিন্ন রাজ্যে পাচারের সঙ্গে যুক্ত ছিল শেখর। মধ্যপ্রদেশের বিভিন্ন থানায় তার নামে অভিযোগও দায়ের হয়েছে বলে দাবি এ রাজ্যের পুলিশের। এমন কী, মধ্যপ্রদেশে ওই যুবকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। ধৃতকে মধ্যপ্রদেশ পুলিশ ট্রানজিট রিমান্ডে নেবে বলেও পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে। সোমবার দুপুরে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ওই যুবককে গ্রেফতার করা হয়। 

ধৃতের স্ত্রী নন্দিতা দাসের অবশ্য দাবি, রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র করেই শেখরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নন্দিতাদেবী বলেন, 'আমার শাশুড়ি আগে তৃণমূল করতেন, এখন বিজেপি-তে যোগ দিয়েছেন। সেই জন্যই চাপ দিয়ে তাঁকে ফের দলে ফেরাতে বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যান এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। আমার স্বামী কোনওদিনই কচ্ছপ পাচারের সঙ্গে যুক্ত না।' তাঁর আরও দাবি, গ্রেফতার করার সময় কোনও কারণ বলেননি পুলিশকর্মীরা। 

ধৃতের পরিবারের অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাদের পাল্টা দাবি, আইন মেনেই পুলিশ যা পদক্ষেপ করার করেছে।