শুক্রবার সকালেই রাজ্যবাসী সাক্ষী থেকেছে ফণী-র বিধ্বংসী তাণ্ডবের। ওড়িশাকে ছারখার করে ক্রমেই তা এগিয়ে আসছে শহরের দিকে। কতটা ভয়াবহ হতে পারে ফণী-র কোপ, তা জানান দিল ওড়িশার পরিস্থিতি। উল্টে গেল বাস, ভেঙে পড়ল ক্রেন। আর ধ্বংসলীলার সেই চিত্র দেখে নড়ে-চড়ে বসেছে প্রশাসন। 

ভূবনেশ্বরে নির্মিয়মাণ এক বহুতলের ওপর থেকে চোখের পলকে ভেঙে পড়ে ক্রেন।  ভয়াানক সেই দৃশ্য ধরা পড়েছে ক্যামেরায় । এই মুহূর্তে নেট দুনিয়ায় ভাইরালও হয়েছে সেই ভিডিও।  কলকাতাকেও যাতে একই ছবির পুনরাবৃত্তি না ঘটে, সেই কথা মাথায় রেখে নির্দেশ জারি করল পুরসভা। কলকাতার সবথেকে উঁচু বহুতল থেকে সরানো হচ্ছে ক্রেন। ক্যামাকস্ট্রীটের মুখে দ্য ফর্টি-টু বহুতলের কর্তৃপক্ষকে এমনই বার্তা দিয়েছে পুরসভা। ঝড়ের তোড়ে যাতে ক্রেন যাতে ভেঙে না পড়ে তার জন্য তৎপর হয়েছে প্রশাসন। তাই সময় থাকতেই বিপদের ঝুঁকি এড়ানোর চেষ্টা চলছে। কাঁচের দরজা, জানলা সময় মতো বন্ধ রাখার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে শহরবাসীকে।

এদিকে সন্ধে নামতেই বৃষ্টির দেখা শহরের বুকে। কালো মেঘের পরিমাণ ক্রমেই বাড়ছে আকাশে। নিজের মতন করে সকলেই সুরক্ষিত আশ্রয়ে ঠাঁই নিচ্ছেন এখন থেকেই। মাাঝরাতে শহরের চেহারাটা ঠিক কতটা বদলাবে লক্ষ্য এখন সেই দিকেই। কন্ট্রোলরুম থেকে সরাসরি নজর রাখছে প্রশাসন। কাঁচা বাড়ির বাসিন্দাদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ চলছে পুরোদমে। ইতিমধ্যেই দু-দুবার লোডশেডিং-এর শিকার হয়েছে কলকাতার বেশ কয়েকটি অঞ্চল।