হাওড়ায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে নিগৃহীত হওয়ার অভিযোগ তুললেন তৃণমূল প্রার্থী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসূনের পাশাপাশি তাঁর আপ্ত সহায়ককেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ তৃণমূল প্রার্থীর। ঘটনায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগও দায়ের করেছেন তৃণমূল প্রার্থী।

ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার শিবপুরের বাল্টিকুড়ির একটি বুথের সামনে। অভিযোগ সেখানে এ দিন তৃণমূল প্রার্থীর সঙ্গে জমায়েত করেছিলেন বেশ কিছু তৃণমূল কর্মী সমর্থক। বুথের পাহারায় থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা এসে তাদের সরে যেতে বলেন। তখনই কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল প্রার্থী এবং দলীয় কর্মীরা। তখনই লাঠিচার্জ করতে শুরু করে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। অভিযোগ, লাঠিচার্জের প্রতিবাদ করতে গেলে প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কেও মারধর করা হয়. আহত হন তাঁর আপ্ত সহায়ক ইন্দ্রনীল বসুও। 

ঘটনার পরেই দাসনগর থানায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান তৃণমূল প্রার্থী। তাঁর অভিযোগ, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাঁর উপরে আক্রমণ চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। 

এ দিন সকাল থেকেই বিভিন্ন বুথে বুথে ঘুরেছেন প্রসূন। এমনকী বালির একটি বুথে বিজেপি প্রার্থী রন্তিদেব সেনগুপ্তের সঙ্গে দেখাও হয় তাঁর। রাজনৈতিক সৌজন্য দেখিয়ে করমর্দন করেন দুই প্রার্থী। পাশাপাশি দাঁড়িয়ে শান্তিতে ভোট দানের আবেদনও জানান তাঁরা। এমন আবেদনের পরেও অবশ্য নির্বিঘ্নে মিটল না হাওড়ার ভোটগ্রহণ। বড় অশান্তির খবর না এলেও শেষ পর্যন্ত মার খেতে হল তৃণমূল প্রার্থীকেই। ঘটনার কথা দলীয় নেতৃত্বকেও জানিয়েছেন প্রসূন।