লকডাউনের সময়ে এলাকায় নিম্নমানের চাল বিলি! স্থানীয় বাসিন্দাদের বিক্ষোভে মুখে পড়লেন খোদ তৃণমূল কাউন্সিলর। প্যাকেট ছিঁড়ে চাল রাস্তায় ফেলে দিলেন বিক্ষোভকারীরা। ধুন্ধুমারকাণ্ড উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে।

আরও পড়ুন: লকডাউন নিয়ে ক্ষোভ, অস্থায়ী শিবিরে সরকারি খাবার প্রত্যাখান পরিযায়ী শ্রমিকদের

পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে, তা জানা নেই কারও। লকডাউনের জেরে দুর্ভোগের শেষ নেই খেটে খাওয়ার মানুষদের। কাজ হারিয়ে চরম আর্থিক সংকটে পড়েছেন তাঁরা। অভাব এতটাই যে, খাবার জোগাড়ও করার সামর্থ্য নেই অনেকেরই। মঙ্গলবার বিকেলে রায়গঞ্জ শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মিলনপাড়া এলাকায় গরিব মানুষদের চাল, সোয়াবিন ও আলু বিলি করেন স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদার। অভিযোগ, কাউন্সিলর যে চাল দিয়েছেন, তা অত্যন্ত নিম্নমানের, খাবার অযোগ্য। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দারা। এমনকী, তৃণমূল কাউন্সিলরের বাড়ি ঘেরাও করেন বিক্ষোভাকারীরা। পুলিশ গিয়ে কোনওমতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 



আরও পড়ুন: 'করোনা রোগী'র চিকিৎসার করার মাশুল, সামাজিক বয়কটের মুখে ডাক্তার ও নার্সরাই

আরও পড়ুন: লকডাউনে মানবিক প্রশাসন, বহিরাগত শ্রমিকদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করলেন বিডিও

এদিকে এলাকায় নিম্নমানে চাল বিলি করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রায়গঞ্জ পুরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদার। গোটা ঘটনাটিকে বিজেপি চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন তিনি। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপি উত্তর দিনাজপুরের জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি।