মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির ঠিকানায় জয় শ্রীরাম লেখা দশ লক্ষ কার্ড পাঠানোর হুমকি দিয়েছিলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ। অর্জুনের দাবি ছিল, কেউ জয় শ্রীরাম বললেই তাঁকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিচ্ছেন মমতা। ফলে যে দশ লক্ষ মানুষ তাঁর বাড়িতে জয় শ্রীরাম লেখা কার্ড পাঠাবেন, তাঁদেরকেও তিনি গ্রেফতার করে দেখান। 

অর্জুনের এই কৌশলের পাল্টা হিসেবে তাঁকে হোয়াটসঅ্যাপা মেসেজ করার পথ বেছে নিলেন তৃণমূল সমর্থকরা। ফেসবুকে তৃণমূল সমর্থকদের একটি পেজে অর্জুন সিংহের ফোন নম্বর দিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে আবেদন করা বলা হয়েছে, ব্যারাকপুরের সাংসদকে হোয়াটসঅ্যাপ করে "জয় হিন্দ, জয় বাংলা এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়" জিন্দাবাদ লিখে পাঠানোর জন্য। 

ওই ফেসবুক পোস্টেই বলা হয়েছিল, যাঁরা অর্জুন সিংহকে এই মেসেজগুলি পাঠাবেন, তাঁরা যেন কমেন্ট করে সেকথা জানিয়ে দেন।  তবে খুব বেশি সংখ্যক মানুষ সেকথা জানাননি। ফেসবুকে ওই আবেদন করার এগারো ঘণ্টা পরেও পোস্টটিতে খুব বেশি লাইক, কমেন্ট যেমন পড়েনি, শেয়ারও হয়নি।

স্বভাবতই এই পোস্টকে খুব বেশি আমল দিতে নারাজ অর্জুন সিংহ। তাঁর কথায়, তিনি বিষয়টিকে গুরুত্বই দিচ্ছেন না। 

গত ৩০ মে নৈহাটিতে দলীয় কর্মসচিতে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তাঁর যাত্রাপথে দু' বার মুখ্যমন্ত্রীর কনভয় লক্ষ্য করে জয় শ্রীরাম স্লোগান দেন বিজেপি  সমর্থকরা। গাড়ি থেকে নেমে তাঁদের পাল্টা প্রশ্ন করেন ক্ষুব্ধ মমতা। পুলিশকে ব্যবস্থা নিতেও বলেন তিনি। মমতা অভিযোগ করেন, তাঁকে গালাগাল করা হয়েছে। পরে পুলিশ বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে আটক করে বলে অভিযোগ। এর পরেই অর্জুন সিংহ মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির ঠিকানায় জয় শ্রীরাম লেখা দশ লক্ষ কার্ড পাঠানোর হুমকি দিয়েছিলেন।