জ্বলছে অসম, কারফিউ জারি হয়েছে মেঘালয়ে। বাংলায়ও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আন্দোলনে নামছে তৃণমূল কংগ্রেসও। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, আগামী সোমবার কলকাতায় গান্ধীমূর্তি থেকে জোড়াসাঁকো পর্যন্ত মিছিল করবেন রাজ্যের শাসকদলের কর্মী-সমর্থকরা। মঙ্গলবার মিছিল হবে যাদবপুর এইটবি বাসস্ট্যান্ড থেকে গান্ধীমূর্তি পর্যন্ত। আর রাজ্যের প্রতিটি জেলায় মিছিল হবে রবিবার।

আরও পড়ুন: শিল্প সম্মেলনে খাদ্য-বিভ্রাট, মমতা সরকারের তুলোধনায় অভুক্ত শিল্পপতি

মোদী জমানায় অসমে এনআরসি লাগু করা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি।  আর এবার এল নাগরিকত্ব আইন। সংসদের উভয় কক্ষে পাস হওয়ার পর বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বিলে স্বাক্ষর করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।  নয়া আইনে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্থান থেকে এদেশে আগত অমুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের আর বেআইনি শরণার্থী বলে গণ্য হবেন না। বরং তাঁদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।  এই আইনে প্রতিবাদে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি উত্তর-পূর্ব ভারতে।  অসমে পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছে দুই আন্দোলনকারী। বেশ কয়েকটি জেলার জারি করা হয়েছে কারফিউ। একই পরিস্থিতি মেঘালয়েও।

আরও পড়ুন: চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, সিআইডির দৌলতে শ্রীঘরে শিক্ষক

শুক্রবার দিঘায় সাংবাদিক সম্মেলনে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ''দেশের প্রতিটি রাজ্যের আলাদা আবেগ আছে। বিজেপি সরকার গায়ের জোরে সব কিছু পাল্টে দিতে চাইছে, জোর করে নাগরিকত্ব সংশোধন আইন লাগু করতে চাইছে। বাংলার এই আইন লাগু করবে না সরকার।' শুধু তাই নয়, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে যেখানে যার যতটুকু ক্ষমতা, তাই দিয়েই দেশের সর্বত্রই গণ প্রতিরোধ গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।