বৃহস্পতিবার মকর সংক্রান্তিতে গঙ্গাসাগরে ভীড় জমিয়েছেন পুর্ণার্থীরা। চলছে পুর্ণার্থীদের স্নান। যদিও অন্যান্য বছর গুলির থেকেও এবার কোভিডের কারণে গঙ্গাসাগরে ভীড় অনেকটাই কম। ভিন রাজ্য থেকে আসা পুর্ণার্থীদের সংখ্য়া এবার কম। তাই গঙ্গা সাগরে সেই ভীড় নেই। সবদিকে কড়া নজর রাখছে নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনী।

 


প্রসঙ্গত, বহু প্রতীক্ষা শেষে বুধবার শর্তসাপেক্ষে গঙ্গা সাগরে স্নানের অনুমতি দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। তবে সমুদ্র স্নানের অনুমতি দিলেও ই-স্নানের উপরেই জোর দিতে বলেছেন প্রধান বিচারপতি টিবিএন রাধাকৃষ্ণণ এব বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্য়োপাধ্যয়ের বেঞ্চ। রাজ্যের মুখ্যসচিবের রিপোর্টে সন্তুষ্ট প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। উল্লেখ্য, কোভিডের আবহে গঙ্গা সাগরে ভিড় নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন, জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন অজয় দে নামের এক ব্যাক্তি। সাগর মেলা প্রাঙ্গন এবং বাবুঘাটে মেলার মাঠকে কন্টেনমেইন জোন হিসাবে চিহ্নিত করার আর্জি জানানো হয়।

 

 

 

ভিন রাজ্য থেকে আসা পুর্ণার্থীদের সংখ্য়া এবার কম হওয়ায় এবার গঙ্গাসাগরে ভীড় অনেকটাই কম। কড়া নজর দারি রাখছে উপকূলরক্ষী এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। নৌবাহিনীও নিরাপত্তায় সহায়তা করছে। উল্লেখ্য, এবার  গঙ্গা সাগরের অফিসিয়াল ওয়েব সাইটে বুক বা অর্ডার দিলেই বাড়ি বসেই মিলবে গঙ্গা সাগরের জল।