রাজ্য থেকে ঘূর্ণিঝড় যশ বিদায় নিলেও ভয়াবহভাবে আছড়ে পড়ল  উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরে।  উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই সতর্ক করেন রাজ্যবাসীকে যে কোথাও কোথাও টর্নেডো হতে পারে। আর সেই সাবধানবানীই সত্যি হয়েছে। এদিকে টর্নেডোর জেরে আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে বহু মানুষ।

আরও পড়ুন, গঙ্গার জলস্তর হতে চলেছে প্রায় ১৮ ফুট, প্রবল বর্ষণে আজ ভাসতে চলেছে কলকাতা 

 

 

আবারও টর্নেডো উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর বিধানসভার ২২ নম্বর সোমা লক্ষ্মী কলোনি ও গুমার একাংশ এলাকায়। ঠিক হালিশহরের মত এই ঘূর্ণিঝড় আবার দেখা গেল উত্তর ২৪ পরগনা অশোকনগর এলাকায়। নিমেষের মধ্যে প্রায় কুড়ি থেকে ৩০ টি বাড়ির টিন থেকে শুরু করে চাল হাওয়ায় উড়ে গেছে। গতকালই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সতর্ক করেন রাজ্যবাসীকে যে কোথাও কোথাও টর্নেডো হতে পারে। এদিন ঠিক সকাল ১০ টা ১৫ টা নাগাদ এমনই ঘটনা ঘটল। ঘটনাস্থল সাক্ষী রইল উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর শক্তিনগর ও গুমা এলাকা বলে জানা গিয়েছে। আতঙ্কে এলাকাবাসী। বহু মানুষ আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। অশোকনগর বিধানসভার বিধায়ক নারায়ন গোস্বামী মহাশয়া ঘটনাস্থলে পরিদর্শন যাচ্ছেন বলে জানা যাচ্ছে। উল্লেখ্য,শুক্রবার আকাশ পথে বাংলায় ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পৃথকভাবে পরিদর্শন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় এবং প্রধানমন্ত্রী মোদী।

 

 

আরও পড়ুন, 'কোভিড দেহ'-র ইস্যুতে পদ্মা-ভাগীরথীর জলেও আতঙ্ক, রুজিতে টান মৎস্যজীবীদের 

অপরদিকে   আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার প্রবল বর্ষণে ভাসতে চলেছে কলকাতা। তার উপর রয়েছে ভরা কোটাল। ফলে এদিন দুপুরে গঙ্গার জলস্তর হতে পারে প্রায় ১৮ ফুট।  তাই বৃষ্টি হলে জল জমার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতায়।  ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে মালদহ, উত্তর দিনাজপুর, দার্জিলিং, কালিম্পং সহ উত্তরবঙ্গে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবেই কলকাতা সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে এদিনও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।