দক্ষিণবঙ্গে কার্যত শীতের বিদায় প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল। আলিপুর আবহাওয়া দফতর আগামী ৭২ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিচ্ছে। পাশাপাশি রাতের তাপমাত্রার কোনও পরিবর্তন হবে না শনিবার পর্যন্ত। 

দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলি বিশেষ করে বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান ও বীরভূমে আগামী ২৪ ঘণ্টায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। শুক্রবার থেকে বৃষ্টি শুরু হবে কলকাতাতেও। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের সবকটি জেলাতেই। তবে ওড়িশা ও ঝাড়খণ্ড লাগোয়া জেলাগুলিতে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি হবে। 

শনিবার সকালেও শহর কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে পূর্বাভাস দিচ্ছে আবহাওয়া দফতর। তিলোত্তমার পাশাপাশি গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই রয়েছে এই বৃষ্টির পূর্বাভাস। যদিও ওড়িশা সংলগ্ন পূর্ব মেদিনীপুর ও পশ্চিম মেদিনীপুরে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব মেদিনীপুর, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মত উপকূলীয় জেলাগুলিতে। 

কলকাতায় বৃহস্পতিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা একেবারে স্বাভাবিক। বুধবারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের ১ ডিগ্রি কম। বাতালে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ৪১ থেকে ৯৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শহরে কোথাও বৃষ্টি হয়নি। 

পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ও পূর্বালী হাওয়ার সংঘর্ষেই টানা তিন দিন ধরে বৃষ্টি হবে রাজ্যজুড়ে। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব এখনো রয়েছে উত্তর-পশ্চিম ও মধ্য ভারতে। এরমধ্যেই আগামী সোমবার নতুন করে আরও একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ঢুকবে জম্মু-কাশ্মীরে। 

এদিকে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে আগামী শনিবার পর্যন্ত ঘন থেকে অতি ঘন কুয়াশা থাকবে উত্তর-পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে। ছড়িশগড়, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও মহারাষ্ট্রের বিদর্ভ এলাকায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হবে, কোথাও কোছাও শিলাবৃষ্টি হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।