রাজ্যে এসে গিয়েছেন অমিত শাহ। ঝুড় ঝুড় করছে তৃণমূলের দেওয়াল। ফুটো ফুটা দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা। রামকৃষ্ণ মিশনে স্বামী বিবেকানন্দকে অমিত শাহ যখন পুষ্পার্ঘ দিচ্ছেন, সেই সময়ই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার জবাবে তুলে ধরলেন তাঁর নবতম প্রচেষ্টা দুয়ারে সরকার কর্মসূচির সাফল্য।

শনিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যখন রামকৃষ্ণ মিশনে অমিত বিবেকানন্দের স্তুতি করছেন, সেই সময়ই বাংলার মুখ্য়মন্ত্রী টুইট করে জানালেন, মাত্র ২ সপ্তাহের মধ্যেই সারা বাংলায় ১ কোটিরও বেশি মানুষ নাকি ১০,০০০ টিরও বেশি দুয়ারে সরকার শিবির পরিদর্শন করেছেন। এই সাফল্যের জন্য তিনি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সমস্য় আধিকারিক ও স্বেচ্ছাসেবীদের আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানিয়েছেন। মমতা বলেছেন, প্রতিদিন এই বিশাল আকারে শিবিরগুলি আয়োজন করার জন্য তাঁরা চব্বিশ ঘন্টা নিরলস পরিশ্রম করেছেন। শিবিরগুলিতে যেসব মানুষ পরিদর্শন করেছেন এবং সরকারি পরিষেবাগুলি গ্রহণ করেছেন, তাঁদেরও তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এদিন তিনি আরও একবার জানিয়েছেন, বাংলার জনগণ যাতে সকল সরকারি পরিষেবাদি একেবারে বাড়ির দ্বারপ্রান্তেই পান, তা নিশ্চিত করতে তাঁর সরকার চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখবে না। তাঁর এই আশ্বাস বাংলার মানুষ কতটা গ্রহণ করেন সেটাই দেখার। 'দুয়ারে সরকার' দিয়ে দলের ভাঙন, বিজেপির উত্থান তিনি কতটা ঠেকাতে পারেন সেটাই দেখার। এতদিন বিজেপির পালে হাওয়ার জোর বাড়লেও অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষকই বলছিলেন, আগামী নির্বাচনে পাল্লা ঝুঁকে মমতার দিকেই। কিন্তু, অমিত শাহ-র এদিনের সফর সেই রাজনৈতিক ভারসাম্য পাল্টে দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।