শারীরিক পরীক্ষার নাম করে নিয়ে গিয়ে হাসপাতাল চত্বরে গৃহবধূর 'শ্লীলতাহানি'। ঘটনার শোরগোল পড়ে গিয়েছে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে। প্রশ্নের মুখে সরকারি হাসপাতালে নিরাপত্তা। থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে নির্যাতিতার পরিবার। 

আরও পড়ুন: অবলা প্রাণীদের উপর 'প্রতিশোধ', খাবারে বিষ মিশিয়ে 'খুন' পথকুকুরদের

নির্যাতিতা ওই গৃহবধূর বাড়ি বিষ্ণুপুরেরই রামসাগর এলাকায়।  তাঁর চার মাসের শিশুপুত্র বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সোমবার বিকেলে। ওই গৃহবধূ তো বটেই, শিশুটির সঙ্গে হাসপাতালে ছিলেন পরিবারের অন্যরাও।  নির্যাতিতার দাবি, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে শিশুবিভাগে ঢুকে পড়ে এক অজ্ঞাতপরিচয় যুবক। নিজেকে হাসপাতালে কর্মী পরিচয় দিয়ে ওই যুবক বলে, শারীরিক কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। এরপর ওই গৃহবধূকে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতাল ভবনে পাঁচতলায় নিয়ে গিয়ে শ্লীলতাহানি করা হয় বলে অভিযোগ। ফিরে এসে যখন নির্যাতিতা তাঁর স্বামীকে ঘটনাটি জানান, তখন রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়।

আরও পড়ুন: 'মিলছে না' পর্যাপ্ত খাদ্যসামগ্রী, রেশন দোকানে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ গ্রাহকদের

জানা গিয়েছে, বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে চত্বরে সিসিটিভিতে নজরদারি চলে। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে অভিযুক্তকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বিষ্ণুপুর থানাতেও অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতার পরিবারের লোকেরা।  কিন্তু সিসিটিভির নজরদারি ও নিরাপত্তা বলয় টপকে কীভাবে অভিযুক্ত সটান শিশুবিভাগে ঢুকে পড়ল? প্রশ্ন উঠেছে।