অবলা প্রাণীদের উপর 'প্রতিশোধ'! 'সুপারি কিলার'-কে লাগিয়ে মেরে ফেলা হল পথকুকুরদের। লকডাউনের মাঝে চরম নৃশংসতার সাক্ষী থাকল রায়গঞ্জ। ঘটনায় দু'জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: আমাজন, অস্ট্রেলিয়ার পর এবার জ্বলছে শুশুনিয়া পাহাড় , আগুন নেভার কোনও লক্ষণই নেই

জানা গিয়েছে, বুধবার সকালে রায়গঞ্জের কর্ণজোড়ার উদয়পুর এলাকায় একটি কুকুরের মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। খোঁজাখুঁজি করতে আরও একটি কুকুরকে অসুস্থ অবস্থা পাওয়া যায়। পরে সে-ও মারা যায়। শুধু তাই নয়, আরও বেশ কয়েকটি কুকুরকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ। ঘটনায় রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা। লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় কর্ণজোড়ায় ফাঁড়িতে। মৃত দুটি কুকুরকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ পশু হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।

আরও পড়ুন: করোনার মাঝেই কম্পন আতঙ্ক, জোড়া ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল বাংলা

এদিকে এই ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দারাই রূপম গঙ্গোপাধ্যায় নামে এক যুবককে ধরে ফেলেন। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে রহস্যের কিনারা হয়। এলাকার লোকের দাবি, রূপম জানিয়েছে, মঞ্জু নন্দী নামে স্থানীয় মহিলার পোষা ছাগলকে মেরে ফেলেছে কুকুর। বদলা নিতে তিনি এলাকার সমস্ত পথকুকুর বিষ দিয়ে মেরে ফেলার 'সুপারি' দিয়েছিলেন। এই কাজের জন্য রূপম নগদ ৫০ টাকাও পেয়েছে বলে জানা গিয়েছে। দু'জনকেই পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তাদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য. আইন অনুযায়ী, কোনও পশু বা প্রাণীকে হত্যা করা কিন্তু দণ্ডনীয় অপরাধ। ধরা পড়লে হতে পারে জরিমানাও। এক্ষেত্রেও যদি পথকুকুরগুলিকে যদি সত্যি বিষ দিয়ে মেরে ফেলা হয়ে থাকে, তাহলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া আশ্বাস দিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় নৃশংসতায় শিউরে উঠেছে অনেকেই।