ফেসবুকের মাধ্যমে বাংলাদেশের এক তরুণীর সঙ্গে প্রথমে আলাপ পরে গভীর বন্ধুত্ব হয়েছিল নরেন্দ্রপুরের এক তরুণীর। সেই বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করার টানে পরিবারকে লুকিয়ে পাসপোর্ট, ভিসা বানিয়ে একাই বাংলাদেশে বান্ধবীর কাছে চলে গিয়েছিলেন এই তরুণী। পরে বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ থানার পুলিশ ও বারুইপুর জেলা পুলিশের সাইবার সেলের তৎপরতায় বাংলাদেশ থেকে উদ্ধার করা হয় নরেন্দ্রপুরের ওই তরুণীকে। 

বারুইপুর জেলা পুলিশের সাইবার সেলের ওসি জয়শ্রী নস্কর শুক্রবার ওই তরুণীকে পরিবারের হাতে ফিরিয়ে দিলেন। পুলিসের এই উদ্যোগে খুশি তরুণীর পরিবার। বারুইপুর জেলা পুলিশের সাইবার সেল সুত্রে জানা যায়, নরেন্দ্রপুরের তেঁতুলবেড়িয়া এলাকার ২৪ বছরের তরুণী কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান এমএ পাঠরত। গত কয়েকমাস ধরে তাঁর সঙ্গে বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ থানার ২১ বছরের এক তরুণীর সঙ্গে ফেসবুকে আলাপ হয় তাঁর। সেই আলাপ থেকেই তাঁদের মধ্যে গভীর বন্ধুত্ব হয়। 

এর পর নরেন্দ্রপুরের তরুণী নিজের পরিবারকে লুকিয়ে বাংলাদেশে যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট, ভিসা বানিয়ে নেন। গত ১৬ অক্টোবর ৭ দিনের জন্য ভিসা নিয়ে তিনি বিমানে করে বাংলাদেশে পাড়ি দেন। বাবাকে শুধু এসএমএস করে বাংলাদেশে যাওয়ার কথা জানান তিনি। একই সঙ্গে তাঁকে না খোঁজার জন্যও বলেন তিনি। এরপর নিজের মোবাইল সুইচ অফ করে দেন ওই তরুণী। 

সেখানে গিয়ে বাংলাদেশের বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করেন তিনি। ইতিমধ্যেই নরেন্দ্রপুর থানায় পরিবারের তরফ থেকে ওই তরুণীর নামে নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়। নরেন্দ্রপুর থানার তরফে বিষয়টি বারুইপুর পুলিশের সাইবার সেলকে জানানো হয়। সাইবার সেলের ওসি জয়শ্রী নস্কর ঘটনার তদন্তে নামেন। ওই তরুণী মোবাইল অফ করে দিলেও তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট চালু ছিল। সেই সূত্র ধরেই পুলিশ জানতে পারে বাংলাদেশের কোথায় রয়েছেন তিনি। 

বাংলাদেশের বান্ধবীর সঙ্গে হোটেল থেকে শুরু করে তাঁর আত্মীয় পরিজনের বাড়িতেও যান ওই তরুণী। এরই মধ্যে বারুইপুর সাইবার সেলের তদন্তকারীরা জানতে পারেন, বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ থানার এক তরুণী বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন। সেই সূত্র ধরেই নারায়ণগঞ্জ থানার পুলিশকে বিষয়টি জানালে তারা বাংলাদেশের ওই তরুণীর এক পিসির বাড়ি থেকে উদ্ধার করে নরেন্দ্রপুরের তরুণীকে। এর পর ঢাকা বিমানবন্দর হয়ে তাঁকে কলকাতায় ফিরিয়ে আনা হয়। নরেন্দ্রপুরের ওই তরুণী পুলিশকে জানিয়েছে, শুধুমাত্র গভীর বন্ধুত্বের টানেই বান্ধবীকে স্বচক্ষে দেখতে বাংলাদেশে গিয়েছিলেন তিনি।