ফেসবুকে বন্ধুত্বের ফাঁদ পেতে এক নাবালিকাকে অপহরণ করার অভিযোগে সুমন বোলেন নামে বছর একুশের এক যুবককে গ্রেফতার করল দক্ষিণ ২৪ পরগণার নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ। প্রায় দিন পনেরো আগে নবম শ্রেণির ছাত্রী ঐ নাবালিকাকে বুঝিয়ে অন্যত্র নিয়ে চলে যায় অভিযুক্ত যুবক। এরপরেই ঐ ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা নরেন্দ্রপুর থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের করে। সেই অভিযোগের তদন্তে নেমে মঙ্গলবার রাতে হুগলির জঙ্গিপুর থানা এলাকা থেকে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতকে বুধবার বারুইপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। 

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রায় আট মাস আগে দক্ষিণ ২৪ পরগনার নরেন্দ্রপুর থানার অন্তর্গত শ্রীখন্ডার বাসিন্দা ঐ ছাত্রী। অভিযুক্ত যুবকের সঙ্গে তার ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর ধীরে ধীরে দুজনের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। পরিবারের অভিযোগ, সেই বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে ঐ যুবক ছাত্রীকে অপহরণ করে। দিন পনেরো আগে ঐ নাবালিকাকে নিয়ে পালিয়ে যায় সে। এরপরেই পরিবারের সদস্যরা এ বিষয়ে নরেন্দ্রপুর থানায় অভিযোগ করলে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ ঐ নাবালিকা ও অভিযুক্তের ফেসবুক প্রোফাইল ও মোবাইল ফোনের কল লিস্ট দেখে তদন্ত শুরু করে। অবশেষে মঙ্গলবার রাতে ধরা পড়ে অভিযুক্ত। উদ্ধার হয় ঐ নাবালিকা। নাবালিকাকে মঙ্গলবারই হোমে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঠিক কি কারণে ঐ নাবালিকাকে অভিযুক্ত অপহরণ করেছিল, সে বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

তবে যুবকের তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অনেকের মত, প্রাপ্তবয়স্ক না হলেও ওই যুবকের সঙ্গে প্রমের সম্পর্ক থাকতে পারে নাবালিকার। স্বেচ্ছায় যুবকের সঙ্গে যেতে পারে নাবালিকা। মেয়ের বাড়ির সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় সম্পর্ক মেনে নাও নিতে পারে পরিবার। সেই কারণেই থানায় অভিযোগ দায়ের।