জ্যোতিষশাস্ত্র এমন একটি বিজ্ঞান যা বিভিন্ন জ্যোতিষ্ক অর্থাৎ গ্রহ-নক্ষত্রের অবস্থান বিবেচনা করে মানুষের ভাগ্যগণনা ও ভাগ্য নিরূপণ করে। যারা ভাগ্য গণনা করে তাদের বলা হয় জ্যোতিষ। জ্যোতিষ একটি সংস্কৃত শব্দ। এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতির্বিষয়ক” এবং এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতিষশাস্ত্রবিৎ” এবং অন্য অর্থ “জ্যোতির্ব্বিৎ”। প্রাচীণকাল থেকেই বেদের লিপিবদ্ধকরণের সময় যজ্ঞানুষ্ঠানের দিন, ক্ষণ ও মূহুর্তাদি নির্ণয়েও জ্যোতিষের বহুল ব্যবহার ছিল। 

আরও পড়ুন- আগামী বছরে কেমন হবে সিংহ রাশির কর্মজীবন, জেনে নিন

অ্যাস্ট্রোনমি অনুযায়ী, সূর্য বা রবির কক্ষপথ দুটো বিন্দুতে চন্দ্রের কক্ষ পথকে ছেদ করে। আর চন্দ্রও ঠিক রবির কক্ষ পথকে দুটো বিন্দুতে ছেদ করে। উত্তর দিকের ছেদ বিন্দুকে রাহু ও দক্ষিণ দিকের ছেদ বিন্দুকে কেতু বলা হয়। আবার গনিতজ্ঞদের মতে এরা দুটি বিন্দুমাত্র, এদের কোনও বস্তুগত উপস্থিতি নেই। তবে জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে বস্তুগত উপস্থিতি না থাকলেও এদের প্রভাব মানব জীবনে ভয়ানক পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে এমন কয়েকটি রাশি রয়েছে যাদের উপর থাকতে পারে রাহুর প্রভাব, বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে একবার দেখে নিন সেই তালিকায় আপনার রাশিটি নেই তো!

আরও পড়ুন- সনাতন ধর্ম মতে কোন দিকে কোন দেবতার বাস, জেনে নিন

রাহু যখন যে ভাবে বা ঘরে অবস্থান করে সেই ভাব বা ঘরকে প্রভাবিত করে। যে নক্ষত্রে অবস্থান করে তার মতো বা যে গ্রহের ঘরে থাকে তার মত ফল প্রদান করে। এদের সঙ্গে কারও স্থায়ী সম্পর্ক তৈরি হয় না। ছাত্র বা ছাত্রীরা সারা বছর রুটিন মাফিক পড়াশুনা করবে না, পরীক্ষার আগে কোনও মতে পড়ে পাশ করার চেষ্টা করে। এরা অকারনেই প্রচুর মিথ্যে কথা বলে। সব সময় প্রচুর মাথা গরম থাকে। সারা জীবন কোনও না কোনও সমস্যা সামলাতে হয়। সুনাম পায় না সেই সঙ্গে মানহানি হয়। এদের রক্তচাপের সমস্যা থাকে এবং ব্রেন স্ট্রোকে জীবনহানির সম্ভাবনা থাকে। 

আরও পড়ুন- আগামী বছরে কেমন হবে কর্কট রাশির কর্মজীবন, জেনে নিন

তুলা- মানুষকে বিশ্বাস করা আপনার জন্য আরও জটিল হয়ে উঠবে আগামী বছরে। কারণ, আপনাকে খুব কাছের কেউ ঠকাতে পারে।  বৃহস্পতি এবং শনির ঘরের পরিবর্তনের জন্য বাহ্যিক সমস্যায় জড়িয়ে পড়তে পারেন। সম্পর্ক ভাঙ্গনের সম্ভাবনাও রয়েছে। তাই আপনাকে খুব ঠাণ্ডা মাথায় চিন্তা-ভাবনা করে কাটাতে হবে আগামী বছর।  নতুন বছরে শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। মানসিক দিক থেকেও বহু সমস্যা দেখা দিতে পারে। নতুন বছরে আর্থিক লেন-দেন চিন্তা-ভাবনা করে করুন।

আরও পড়ুন- পৌষের অমাবস্যায় এই ব্রত, বহু সমস্যা কাটিয়ে দেয় অবিশ্বাস্য ফল

কর্কট- ২০২০ সালে এই রাশির জাতক-জাতিকাদের খুব খারাপ  কাটতে পারে। কারণ আগামী বছরে বৃহস্পতি শনির ঘরে বিরাজ করবে, যার ফলে আপনার সহজে হয়ে যাওয়া কাজগুলি করা তখন কঠিন হয়ে উঠবে। আপনার থেকে কম যোগ্যতার মানুষগুলো উন্নতি করে চলেছে আর আপনি তখন হীনমন্নতায় ভুগবেন, কারণ আপনার কোনও কাজ সঠিকভাবে করতে আপনি ব্যর্থ হবেন।  নিজের প্রতি ভরসা রাখুন। আগামী বছরে আপনার স্বাস্থ্যের প্রতি বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। নতুন বছরে কোনও আর্থিক বিনিয়োগের আগে খুব চিন্তা ভাবনা করে তবে সিদ্ধান্ত নিন। সেপ্টেম্বরল মাসের দিকে দ্বাদশ ঘরে রাহুর উপস্থিতি আপনাকে মানসিকভাবে উদ্বিগ্ন রাখবে।

আরও পড়ুন- পৌষ মাসের শনিবার মেনে চলুন এই নিয়ম, কাটিয়ে উঠুন দারিদ্রতা ও খারাপ সময়ের যোগ

মেষ- বৃহস্পতি যখন মকর রাশিতে থাকে তখন এখটি সমচতুষ্কোন তৈরি করে যা, সবচেয়ে খারাপ প্রভাব ফেলে। আগামী বছরে আপনি যে কোনও কাজ করতে গেলেই বাধাপ্রাপ্ত হবেন। কোনও কাজই একবারের চেষ্টায় শেষ করতে পারবেন না। আগামী বছরে আর্থিক বিনিয়োগ এড়িয়ে চলুন কারণ প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এছাড়া অসুস্থ হওয়া বা দুর্ঘটনা ঘটার যোগও রয়েছে তাই সতর্কভাবে চলাফেরা করুন। আপনার পারিবারিক জীবনেও ভালো ও খারাপ মিলিয়ে চলবে। বছরের শুরুর দিকেই বসত বাড়ি পরিবর্তন করতে হতে পারে। আপনার স্বাস্থ্যের দিকে বিশেষভাবে নজর দিতে হবে। কাজের পাশাপাশি যথেষ্ট বিশ্রামের প্রয়োজন।