হিন্দু ধর্মের মানুষের কাছে শাঁখের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রতিদিন সন্ধ্যা ও সকালে শাঁখ বাজিয়ে দেবতাদের সন্তুষ্ট করা হয়। এমনটাই মনে করেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। হিন্দু শাস্ত্রে কথিত রয়েছে শাঁখ শ্রী বিষ্ণুর অন্যতম অস্ত্র আর এই শাঁখে ফু দিলেই যে হাওয়া বের হয় তা অশুভ শক্তিকে বাড়ি থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। শুধু হিন্দু ধর্মই নয় বৌদ্ধ ধর্মেও এই শাঁখের বহুল প্রচলন রয়েছে। 

আরও পডৃ়ুন-ভ্যালেন্টাইন'স ডে-তে ভাগ্য খুলবে এই রাশিগুলির, রইল বিস্তারিত...

পুজো হোক বা যে কোনও শুভ অনুষ্ঠানেই শাঁখ বাজানোর চল রয়েছে।  হিন্দু গৃহস্থের বাড়িতে সাধারণত একটি নয়, দুটি করে শাঁখ থাকে। একটি সাধারণত পুজোর কাজে ব্যবহার করা হয় আর অন্যটি  বাজিয়ে পুজো করা হয়। কিন্তু শাস্ত্র মতে নিয়ম মেনে শাঁখ না বাজালেই কিন্তু আসতে পারে মারাত্মক বিপদ। যাদের বাড়িতে দুটো শাঁখ রয়েছে তারা কীভাবে শাস্ত্র মতে শাঁখ ব্যবহার করবেন রইল তার কিছু নিয়মবিধি।

আরও পড়ুন-দক্ষিনমুখী ঘর শুভ না অশুভ, জেনে নিন রাশি অনুযায়ী...

বাড়িতে দুটো শাঁখ থাকলে একই ঘরে দুটো শাঁখ একসঙ্গে রাখবেন না। 

বাজার থেকে এনেই শাঁখ ব্যবহার করবেন না। ভাল করে গঙ্গা জল দিয়ে ধুয়ে তারপর ব্যবহার করুন।

শাঁখ সবসময় গঙ্গা জল দিয়ে ধুয়ে তারপর হলুদ কাপড়ের উপর মুড়ে রাখুন।

জলশাঁখ নিয়মিত গঙ্গা জল দিয়ে ধুয়ে সেটি সাদা কাপড়ে মুড়ে অন্য জায়গায় রেখে দিন।

বাড়িতে শিবলিঙ্গ থাকলে তার পায়ের সামনে রাখার চেষ্টা করুন।

শাস্ত্রমতে অনেকেই সূর্যদেবের পুজোর সময় গঙ্গার জল শাঁখের মধ্যে দিয়ে সেটি পুজোর সময় ব্যবহার করেন। এটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। 

প্রতিদিন সকালে স্নান করে শাঁখ বাজালে পরিবারের মঙ্গল হয়।