দৈনন্দিন জীবনে চলার পথে আমাদের প্রত্যেকেই কিছু না কিছু সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়। প্রত্যেকটি মানুষের জীবনেই রয়েছে নানান সমস্যা। যার সঙ্গে প্রতিনিয়ত আমাদের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, গ্রহ নক্ষত্রের শুভ-অশুভ প্রভাবের ফলে আমাদের জীবনে এই সমস্ত সমস্যা দেখা দেয়। সেই রকমই একইভাবে গ্রহ-নক্ষত্রের পাশাপাশি বাস্তুর প্রভাবেও মানুষের দৈনন্দিন জীবনে নানান জটিল সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। যা জীবনে চলার পথে প্রতিনিয়ত বাধার সৃষ্টি করে। সাফ্যলের পথে বাধার সৃষ্টি করে জীবন দুর্বিসহ করে তোলে। তাই জীবনের এই সমস্ত জটিল সমস্যা বা বাধা কাটিয়ে ওঠার জন্য সমস্ত অশুভ শক্তির বিনাশ করে শুভ শক্তির উদয় ঘটানো প্রয়োজন। যা আমাদের জীবনের খারাপ পরিস্থিতি থেকে কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে জীবনে এই খারাপ পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে পারবেন সহজেই।

আরও পড়ুন- খারাপ পরিস্থিতি কাটিয়ে ফিরিয়ে আনুন সৌভাগ্য, সামান্য় এই একটি উপাদানের সাহায্যেই

বাস্তুশাস্ত্রের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, আমাদের ব্যবহারের এমন কিছু বস্তু আছে, যা দিয়ে আমরা সহজেই অশুভ শক্তির বিনাশ করে জীবনে খারাপ পরিস্থিতি কাটিয়ে ফিরিয়ে আনতে পারি সৌভাগ্য। শুনতে অবাক মনে হলেও এটি বাস্তুশাস্ত্রের মতে অনন্ত এক সত্য। মাত্র কয়েকটি নিয়ম বদলে দিতে পারে আপনার জীবন। তবে জেনে নেওয়া যাক সেইগুলি-

শোয়ার ঘরের ব্যবস্থা করুন বাড়ির দক্ষিণ পশ্চিম দিকে।
পড়ার ঘর করুন বাড়ির পূর্ব দিকে।
এক্যুরিয়াম রাখুন বাড়ির উত্তর পূর্ব দিকে।
বাগান থাকলে তার ব্যবস্থা করুন বাড়ির পূর্ব দিকে।
বাড়িতে ঢোকার মুখে কোন ফাঁকা দেওয়াল থাকলে তাতে ছবি টাঙিয়ে রাখুন।

আরও পড়ুন- মাইনে পেয়ে খরচ করার আগে অবশ্যই করুন এই কাজ, মিলবে সৌভাগ্য
পরিবারের সকলে একসঙ্গে মিলে বসতে হলে সেই জায়গার ব্যবস্থা করুন উত্তর -পূর্ব দিকে। এতে পরিবারের মধ্যে সংযোগ ভালো থাকে।  এই দিকের দেওয়ালে কোনও লম্বা রাস্তার ছবি বা সূর্যমুখী ফুলের ছবিও রাখতে পারেন। 
পারিবারিক কোনও ছবি রাখতে হলে তা অবশ্যই রাখুন বাড়ির দক্ষিণ পশ্চিম দিকে। এতে পারিবারিক সম্পর্কের উন্নতি ঘটে।
বাস্তুর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি নিয়ম হল বাড়ির জানালা ও দরজার যেন জোড় সংখ্যার হয়।
আর্থিক উন্নতির জন্য লাল রং-এর ঘোড়ার ছবি টাঙিয়ে রাখতে পারেন বসার ঘরে।
খাটের নীচ সবসময় পরিষ্কার ও ফাঁকা রাখুন।
ঘরে কখনও ঝুল পড়তে দেবেন না, এতে সংসারের অমঙ্গল হয়। 
বাড়ি-ঘর সব সময় পরিষ্কার-পরিছন্ন এবং গুছিয়ে রাখুন।

বাস্তুর এই কয়েকটি নিয়ম যদি মেনে চলতে পারেন, তবে কোনও খরচ ছাড়াই আপনি আপনার জীবনের খারাপ সময় কাটিয়ে উঠতে পারবেন সহজেই।