টলিউডের নামকরা পরিচালক কৌশিক গাঙ্গুলি এবং টলি অভিনেত্রী চূর্ণী পথচলা শুরু করছিলেন  সেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস থেকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুত্ব থেকে স্নাতক  তারপর অবলীলায় কেটে গিয়েছে অনেকগুলো বছর। সেই তখন থেকেই পথচলা শুরু। তারপর মাঝে এসেছে উজান। এত বছরের বিবাহিত জীবনে কখনও মুখ ফুটে নিজের স্ত্রীকে কিছু বলতে পারেননি কৌশিক। কিন্তু আজ আর বাধ মানল না। আজ তাদের বিবাহবার্ষিকী। বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষ্যেই নিজেদের একান্ত ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি পোস্ট করে ভালবাসায় ভরিয়ে দিয়েছেন পরিচালক কৌশিক। 

আরও পড়ুন-বড়সড় মধুচক্রে নাম জড়াল বলিউডের এই অভিনেত্রীর, পুলিশি অভিযানে উদ্ধার ৩...

কৌশিকের করা পোস্টটি ভাইরাল হতে যদিও খুব বেশি সময় লাগেনি। নিজের সমস্ত জমে থাকা মনের কথা আজকের এই বিশেষ দিনে উজার করে দিয়েছেন অভিনেতা। এমনকী সকলের সামনেই আদরে, চুমুতে ভরিয়ে দিয়েছেন কৌশিক। তিনি লিখেছেন,' সকালে আমার আর চূর্ণীর এই ছবিটা ফেসবুকে পোস্ট করেছিলাম। লন্ডনে তোলা একান্ত ব্যক্তিগত সেল্ফি । তাও আজ ছবিটা দিলাম কারন কিছু ভাললাগার কথা জোরে বলতে ইচ্ছে করে। সবাইকে জানাতে ইচ্ছে করে ভিতরটা। আজ বিবাহবার্ষিকী আমাদের। এতগুলো বছরের পর চূর্ণীকেও বিব্রত করতে ইচ্ছে হলো। সেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুতা থেকে স্নাতক উজান অবধি আমাদের জীবনটা কি অবলীলায় সামাল দিয়ে গেল সেই পাহাড়ী মেয়েটা, আমরাই জানি। বিয়ের পরপর সেই ছোট্ট বয়সে ওর নিজের অল্প রোজগারে আমার একটা অপারেশন থেকে, পরে কাজ কমিয়ে পুত্র বড় করার মতো ত্যাগ লিখলে, একটা উপন্যাস হবে। ও খুবই ব্যক্তিগত , লাজুক মানুষ, আমি বরং একটু প্রচারমুখী। অল্পেও নিজের ঢাক পেটাতে আমি এক বেলাও দেরী করি না, অথচ মেয়েটা মুখ বুজেই থেকে গেল, কেউ ওর আসল অবদানটা জানতেই পারে না। আমার জীবন আর সিনেমার কতটা জুড়ে চূর্ণী, খুব ঘনিষ্টরা ছাড়া কারোর কোনো ধারণা নেই। তাই আজ ছবিতে, কথায়, উচ্চারণ করে বলতে ইচ্ছে হল, "চূর্ণী, তোমাকে ছাড়া না হতাম আমি, না হতো আমার সংসার, না আমাদের উজান । অনুপ্রেরণা আর গতিপথ হারাতো আমার সিনেমার ভাষা। রাতজেগে আমার চিত্রনাট্য সংশোধনের অজানা স্মৃতি আজ সবাই জানুক। কোন নদীর জলে এমন ফসল ফলে আমার ছায়াছবিতে তাও জানুক সব্বাই। আমাদের অহংকার তুমি। জানি অস্বস্তিতে মুখ লাল হবে তোমার, তাও আজ তোমার জন্য প্রকাশ্য চুম্বন। বন্ধুরা, আপনাদের এতদিনের ভালোবাসার জন্য কৃতঞ্জতা জানাই।'

 

 

আরও পড়ুন-মহানায়িকা কেন তিনি, সুচিত্রা সেন সম্পর্কে রইল ১২ তথ্য...

কৌশিকের করা পোস্টে চূর্ণীর মুখ লাল হবে জেনেও এই পোস্টটি তিনি করেছেন। শুধু তাই নয়, ছেলে উজানকেও ট্যাগ করেছেন। নিজেদের বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষ্যে পাল্টা জবাবও দিয়েছেন অভিনেত্রী চূর্ণী। তিনি জানিয়েছেন, 'যে যত্ন নিয়ে কৌশিক নীচের লেখাটা লিখেছে ততটাই যত্ন নিয়ে আজকের প্রতিটি মুহূর্ত কাটিয়েছে আমার সাথে। আমাদের গল্প যেন শেষই হয় না। অল্প কাজের কথা, কত কত মনের কথা, একসাথে কিছু পড়ে বেশ কিছুটা গলা ধরে আসা। আর একটু নিজেদের মতো করে থাকা। সন্ধ্যায় বাজারে একসঙ্গে রোজকার সব্জি বাজার। আর বাড়ি ফিরে আমাদের নিজের নিজের প্রিয় কাপে দার্জিলিং টী!এমন আন্তরিক বোঝাবুঝিতে, রোজকার সাধারণ দায়িত্ব পালনে, সৃষ্টিশীল কাজে, বছরের বাকি দিনগুলো যেন কাটে আমাদের। আর কিচ্ছু চাই না। আমি তো আরো‌ মুগ্ধ ফেসবুকে আপনাদের এতো এতো শুভেচ্ছা, ভালোবাসায়। ধন্যবাদ। সবাই ভালো থাকবেন।'

 


উল্লেখ্য এইবছরই উইনডোজের প্রযোজনায় মুক্তি পেতে চলেছে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের আপকামিং ছবি 'লক্ষ্মী ছেলে'। এই প্রথমবার বাবার পরিচালনায় দেখা যাবে ছেলে উজান চক্রবর্তীকে।