পায়েল সরকারের হটনেস নিয়ে কারও কোনও সন্দেহ নেই। যেকোনও পোশাকেই তাঁর শরীরী আবেদন যেন ১০০-এ ১০০। এবারও তেমনই একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন তিনি। যেখানে অন্তর্বাসে প্রায় উন্মুক্ত পিঠে চুল আলগোছে ধরে আছেন তিনি। নিঃসন্দেহে হটনেস ছড়িয়ে পড়ছে তাঁর। সম্প্রতি আরও একটি আয়নার সামনে তোলা, পায়েলের পরণে অন্তর্বাস। ছবিতে তাঁর বয়স যে ৪০ ছুঁই ছুঁই তা বোঝা মুশকিল। খুব বেশি হলে ৩০-এর গোড়ায় ভাবা সম্ভব তাঁর গ্ল্যামারে চোখ পড়ার পর। প্রসঙ্গত, রাজা চন্দের আগামী ছবির 'হারানো প্রাপ্তি নিরুদ্দেশ'-তে নায়িকার ভূমিকায় রয়েছেন পায়েল সরকার। 

বিপদ থেকেই প্রেমের শুরু, সেই প্রেম শুরু হতে না হতেই বাধাপ্রাপ্ত হল সমাজের কালো দিকটার কারণে। মৈনাক এবং একটি অচেনা মেয়ে। হঠাৎ করেই দেখা হয় তাদের। সেই দেখা হতে হতেই প্রেম। এভাবেই 'হারানো প্রাপ্তি' বদলে গেল 'নিরুদ্দেশ'-এ। রোম্যান্টিক থ্রিলারে মোড়া চিত্রনাট্য। প্রধান ভূমিকায় দেখা যাবে পায়েল সরকার এবং সোহম চক্রবর্তীকে। মৈনাকের ভূমিকায় দেখা যাবে সোহমকে। পোর্শা কোম্পানির অটোমোবাইরল ডিজাইনার হল মৈনাক সেন। কলকাতার বাইরে থাকা হয় কাজের সূত্রে। কোনও এক কারণে কলকাতা ফেরে সে। ফিরতেই জড়িয়ে পড়ে এক বিপদে। 

আরও পড়ুনঃশরীরী আবেদনে খুশির খবর পাড়লেন মনামী, ব্যাকলেস ব্লাউজে মোহময়ী অভিনেত্রী

আরও পড়ুনঃদুর্গা রূপে 'মোহর', সোনামণি সাহার অন্নপূর্ণা অবতার মুগ্ধ করল ভক্তদের

বিপদের রূপে ভালবাসা নিয়ে আসেন পায়েল সরকার। তিনি থাকছেন সোহমের বিপরীতে। পায়েলকে কিছু গুন্ডাদের থেকে উদ্ধার করে মৈনাক। শহর জুড়ে পালিয়ে বেড়াতে থাকে তারা। পালাতে পালাতেই শুরু হয় তাদের প্রেমকাহিনি। মৈনাক তাকে তার দেশের বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তারপর ফের নিখোঁজ হয়ে যায় মেয়েটি। তারপরই শুরু হল মৈনাকের যুদ্ধ। যুদ্ধের ময়দানে তার পাশে এসে দাঁড়াবে জাহিদা এবং আসলাম। জাহিদার ভূমিকায় দেখা যাবে তনুশ্রী চক্রবর্তীকে। আসলামের চরিত্রে থাকছেন সৌরভ দাস। প্রেমকাহিনি এবং থ্রিলারে ভরা ছবির চিত্রনাট্য।