সম্প্রতি ভার্চুয়াল দুনিয়ায় যেহারে অপরাধ বাড়ছে তা নিয়ে সকলেই নাজেহাল। হেনস্তা যেন নিত্যদিনের সঙ্গী মহিলাদের। সরাসরি মাধ্যমকেও ছাপিয়ে গেছে ভার্চয়াল প্ল্যাটফর্ম।  যার উপর রাগ-ক্ষোভ বাড়ছে তাদেরকেই দেওয়া হচ্ছে ধর্ষণ, খুনের হুমকি। সাইবার অপরাধ দিন দিন যেন বেড়েই চলেছে। বলিউড থেকে বাঙালি অভিনেত্রী, সকলেই এর শিকার হচ্ছেন। গোটা দেশে ভার্চুয়াল শ্লীলতাহানি শিকার হচ্ছে প্রত্যেকে।

আরও পড়ুন-বয়কটের ডাক সলমনকে, কপিলের শর্মার শো বন্ধের দাবিতে সোচ্চার নেটিজেনরা...

সম্প্রতি ভার্চুয়াল শ্লীলতাহানি শিকার হয়েছেন অভিনেত্রী নুসরত জাহান। সাংসদ-অভিনেত্রী নুসরত যখনই কোনও হিন্দু অনুষ্ঠানে যান, তখন তার বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করে কয়েকটি ধর্মীয় সংগঠন। এর পাশাপাশি চলতে থাকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি। সম্প্রতি এই সাইবার অপরাধ নিয়ে নুসরত জানিয়েছেন, 'অনলাইনে যারা এইরকমভাবে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি দেয় তারা আসলেই বিকৃত মানসিকতার মানুষ। অনলাইনে এই ধরনের নোংরামি নিয়ে আমি চিন্তিত।  যদিও এহেন পরিস্থিতিতে আমি কখনওই বিভ্রান্ত হই না।'

 

 

আরও পড়ুন-শারীরিক সম্পর্ক চলাকালীন বেডরুম ছেড়ে বেরিয়ে যান মহেশ, নগ্ন অবস্থাতে বেরিয়ে কী করেছিলেন পারভিন...

কবে এই সামাজিক মাধ্যমকে হাতিয়ার করে এই নোংরা অশ্লীলতা বন্ধ হবে, এই প্রশ্নই তুলেছিলেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। এখানেই শেষ নয়, এই ধরনের বিকৃত মানসিকতা সম্পন্ন মানুষেরা নিজের প্রেফাইল ব্লক করে রেখে অন্যের টাইমলাইনে গিয়ে কটাক্ষ করেন। পাশাপাশি এই প্রোফাইলের বিরুদ্ধে গিয়ে তিনি রিপোর্টও করেন। তবে এই প্রথম নয়, কিছুদিন আগেও ধর্ষণ ও অ্যাসিড ছোঁড়ার হুমকি দিয়েছিলেন এক যুবক।  সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বস্তিকাকে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারার হুমকি, ধর্ষণের হুমকি ক্রমাগত দিতে থাকেন হুগলির ওই ব্যক্তি। অবশেষে গ্রেফতার করা হয়েছিল অভিযুক্তকে। হুগলি জেলার মোগড়া থেকে কৌশিক দাস নামে ওই ব্যক্তিতে ধর্ষণ ও অ্যাসিড হামলার অভিযোগে নিজের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  এবং স্বস্তিকার নামে ভুয়ো উদ্ধৃতি নিয়ে সংবাদ প্রকাশের অভিযোগের ভিত্তিতে এক সাংবাদিককেও গ্রেফতার করেছে  পুলিশের সাইবার বিভাগ।